সব সমাজেই সামাজিক লিঙ্গভিত্তিক শ্রেণীতালিকা রয়েছে

0
3
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

মনের খবর টিভির মানসিক স্বাস্থ্য ও দৈহিক স্বাস্থ্য আন্তঃসম্পর্ক বিষয়ক ধারাবাহিক আয়োজন ‘দেশ জুড়ে মনের খবর’এর এবারের বিষয়- ‘ছেলে-মেয়ের লিঙ্গ পরিচয় নির্ধারণ ও যৌন আকর্ষণ: কতটুকু পরিবর্তন করা সম্ভব!’। ২০ ডিসেম্বর সোমবার, রাত ১০ টায় মনের খবর টিভিতে অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করা হবে।

এই বিষয়ে কথা বলতে উপস্থিত থাকবেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু সার্জারী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ কে এম জাহিদ হোসেন এবং পি এইচ ডাব্লিউ সি’এর কনসালটেন্ট সাইকিয়াট্রিস্ট ডা. মো. জুরদি আদম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করবেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ডা. সালাহউদ্দীন কাউসার বিপ্লব।

সামাজিক লিঙ্গ পরিচয় শব্দ দ্বারা একজন মানুষের সামাজিক লিঙ্গ (জেন্ডার) সম্পর্কে নিজস্ব অভিজ্ঞতাকে বোঝানো হয়। এই শব্দজোড়া দিয়ে সবসময়ই যে জন্মসূত্রে প্রাপ্ত সামাজিক লিঙ্গ পরিচয়কে বোঝায়, তা কিন্তু নয়।  অনেক সময়ই সামাজিক লিঙ্গ পরিচয় ব্যক্তির নিজস্ব সিদ্ধান্ত হয়ে থাকে যে তিনি কোন সামাজিক লিঙ্গ পরিচয়ে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। সব সমাজেই সামাজিক লিঙ্গভিত্তিক শ্রেণীতালিকা রয়েছে, যা দিয়ে সমাজের অন্যান্য সদস্যদের সাথে একজন ব্যক্তির সামাজিক সম্পর্ক গড়ে উঠে। তবে বেশিরভাগ সমাজে শুধুমাত্র নারী ও পুরুষের ভিত্তিতে সামাজিক লৈঙ্গিক বৈশিষ্ট্যাবলীর পার্থক্য রয়েছে। জৈবিক লিঙ্গ পরিচয়ের উর্ধ্বে উঠে যেকোন সামাজিক লিঙ্গের মানুষের সমভাবে পুরুষত্ব এবং নারীত্ব প্রকাশকেই জেন্ডার বাইনারি অনুপ্রাণিত করে। প্রতিটি সমাজেই, কিছু ব্যক্তি থাকে যারা তাদের জৈবিক লিঙ্গ পরিচয়ের সাথে সম্পর্কিত সামাজিক বৈশিষ্ট্যাবলির সবগুলি বা কিয়দংশ প্রকাশ করে না। এদের মাঝে কেউ কেউ রূপান্তরিত সামাজিক লিঙ্গ অথবা সামাজিক লিঙ্গগতভাবে কুইয়ার(সমাজনির্ধারিত মান-বহির্ভূত সংখ্যালঘু সামাজিক লিঙ্গ)। আবার কেউ কেউ তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে পরিচিত।

পরিবার, সংবাদমাধ্যম ও সামাজিকভাবে সামাজিক লিঙ্গভিত্তিক আচরণ ও চরিত্রায়ন শিশুর সামাজিক লিঙ্গ পরিচয় গড়ে উঠতে বড় প্রভাব ফেলে।  শিশুরা যে সমাজে বড় হয়, সেই সমাজে যদি নির্দিষ্ট সামাজিক লিঙ্গের মানুষের নির্দিষ্ট কিছু আচরণগত গতানুগতিক স্বভাব থাকে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শিশুরা সেই আচরণ নিজেদের মাঝে ধারণ করে বড় হয়।  অবচেতন মনে ভাষা শেখার সময়ই শিশুরা পুরুষবাচক ও নারীবাচক শব্দাবলি আলাদা করে বুঝতে পারে যা তাদের আচরণে প্রভাব ফেলে।  সামাজিক লিঙ্গভিত্তিক আচরণ দেখে তা নকল করার মাধ্যমে এবং আচরণের উপর নির্ভর করে তাঁরা পুরষ্কৃত বা তিরষ্কৃত হয় কিনা এগুলোর ভিত্তিতেও শিশুদের মাঝে নিজস্ব সামাজিক লিঙ্গ পরিচয় গড়ে উঠে বলে “সামাজিক শিক্ষা তত্ত্ব” দাবী করে। সামাজিক লিঙ্গ পরিচয় নিজস্ব আকার পায় শিশুদের চারিদিকে থাকা মানুষের আচরণের মাধ্যমে, কেননা শিশুরা বড় হয় অনুকরণ করেই।

দেশ জুড়ে বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে শিশু স্বাস্থ্য বিষয়ে যে কোন পরামর্শ পেতে আপনিও যুক্ত হতে পারেন। চোখ রাখতে হবে মনের খবর টিভির ফেসবুক https://www.facebook.com/monerkhabortv/live/ ও ইউটিউবের https://www.youtube.com/channel/UCXd-n7yDt4q_DB6YzLQZF7A মাধ্যমে।

অনুষ্ঠানটির মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে মনের খবর টিভি।

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

“মনের খবর” ম্যাগাজিন পেতে কল করুন ০১৮ ৬৫ ৪৬ ৬৫ ৯৪

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here