লিফটে চড়লে আমার দম বন্ধ হয়ে আসে শ্বাসকষ্ট হয়

সমস্যা:
আমার নাম ইব্রাহিম। পেশায় একজন ব্যাংকার। আমার সমস্যা হলো লিফটে চড়া। আমার অফিস ৭ম তলায়, লিফট সুবিধা আছে কিন্তু আমি সিঁড়ি বেয়ে উঠি। তবে এ সমস্যা আগে ছিল না। পাঁচ মাস আগে আমার এক কলিগের থেকে জানতে পারি ওদের বাসার লিফট ছিঁড়ে নিচে পড়ে গেছে এবং একজন আরোহী ছিল সে মারা গেছে। তারপর থেকে আমি আর লিফটে চড়তে পারি না। চড়লে আমার দম বন্ধ হয়ে আসে, মাথা ঘুরতে থাকে। মনেহয় এক্ষুণি মারা যাবো। সিঁড়ি দিয়ে উঠতে গিয়ে মাঝে মাঝেই দেরি হয়ে যায়। এছাড়া উঁচু বিল্ডিং-এ উঠা থেকে বিরত থাকি, সেটা করতে গিয়ে আমি বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের কাছে অসামাজিক হয়ে পড়ছি। কিভাবে আমি এই ভয় কাটিয়ে পুনরায় লিফট ব্যবহার করতে পারবো। দয়া করে জানাবেন।
 
পরামর্শ:
মূলত এই সমস্যাটি হলো প্যানিক ডিজঅর্ডার উইথ এগারোফোবিয়া। এর কতগুলো ভ্যারাইটি আছে, এটাকে ক্লস্ট্রোফোবিয়া (claustrophobia) বলা যায়। ক্লোজড স্পেসে ভয় যেমন- বাথরুম, লিফট, সেলুন অর্থাৎ যে স্থানগুলো আটকানো থাকে সে স্থানের ভয়। এই সমস্যাটার যদি চিকিৎসা করা যায় তাহলে মূলত ভালো হয়ে যাবে। আর চিকিৎসা যদি না করা যায়, যদি এভোয়েড করা যায় তাহলে কি হবে? সাধারণত মানুষ এভোয়েড করে যে, লিফটে চড়লেই আমার মনেহয় দম বন্ধ হয়ে যাবে তাহলে আমি লিফট এভোয়েড করি। কিন্তু আমাদের বাস্তব জীবনে লিফট এভোয়েড করা যাবে না, কাউকে যদি বার তলায় উঠতে হয় দশ তলায় উঠতে হয় তাহলে লিফট ছাড়া হবে না। অতএব এই পরিস্থিতিটাকে মোকাবেলা করতে হবে, এভোয়েড করা যাবে না। এটা হলো বিহেভিয়ার থেরাপির একটা অংশ। এ ধরনের রোগের চিকিৎসায় ঔষুধেরটা ফার্মালজিক্যাল আর হলো সাইকোলজিক্যাল। ফার্মালজিক্যাল ভিতর থেকে সিমটোম দূর করে দেয়। আর মোকাবেলা করার জন্য বিহেভিয়ার থেরাপি। এ থেরাপি বিভিন্ন ভাবে দেয়া হয়। সাধারণত এটার মূল বিষয় পরিস্থিতিটাকে এভোয়েড না করে মোকাবেলা করা। কিন্তু মোকাবেলা কিভাবে করবেন? লিফটে চড়লেই তো আপনার দম বন্ধ হয়ে যায়, লিফটে চড়লেই তো শ্বাসকষ্ট হয়। সেক্ষেত্রে ছেলে-মেয়ে, স্বামী-স্ত্রী, বন্ধু-বান্ধব আপনজনের সাথে প্রথমে অল্প দূরত্বে লিফটে চড়ে ভয়টা কাটাতে হবে যে সবাই চড়ছে আমিও পারব। মনের মধ্য থেকে ভয়টা কাটানোর জন্য আপনাকে ওখানে যেতে হবে। একে এক্সপোজার বলি আমরা। আস্তে আস্তে করতে করতে আপনি একাই চড়তে পারবেন। এটা মানসিক সমস্যা হলেও ভালো হওয়া সম্ভব। আপনি একজন সাইকিয়াট্রিস্ট অথবা সাইকোলজিস্ট-এর সাথে যোগাযোগ করুন। তাদের পরামর্শমতো চললে আপনি ভালো হয়ে যাবেন।
পরামর্শ দিচ্ছেন,
প্রফেসর ডা. এম এ সালাম


দৃষ্টি আকর্ষণ- মনেরখবর.কম এর প্রশ্ন-উত্তর বিভাগে, মানসিক স্বাস্থ্য, যৌন স্বাস্থ্য, মাদকাসক্তি সহ মন সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে আপনার কোনো জানার থাকলে বা প্রশ্ন থাকলে বা বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দরকার হলে question@www.monerkhabor.com এই ইমেলের মাধ্যমে প্রশ্ন পাঠাতে পারেন।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here