মানসিক স্বাস্থ্য সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান

0
18
মানসিক সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

দেশের মোট জনসংখ্যার ১৭ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনো মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। এরমধ্যে ৮ শতাংশ মানুষ মানসিক স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছেন। সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন অবশিষ্ট ৯২ শতাংশ মানুষ। এই সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

রবিবার (১০ অক্টোবর) বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে ‘অসম বিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য’ শীর্ষক ওয়েবিনারে তারা এ আহ্বান জানান। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ন্যাশনাল ট্রমা কাউন্সেলিং সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ এবং বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির যৌথভাবে ওয়েবিনারটির আয়োজন করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান জোবেদা খাতুনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, ঢাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, ঢাবির ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ও বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটির সভাপতি ড. মোহম্মদ মাহমুদুর রহমান, ঢাবির ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কল্পে মাল্টি সেক্টরাল প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক এ কে এম শামীম আক্তার প্রমুখ। ওয়েবিনারে তিন শতাধিক আলোচক যুক্ত ছিলেন।

সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, মানসিক অসুস্থতা প্রতিরোধের জন্য অনেক কাজ করার সুযোগ রয়েছে। হতাশা, কর্মস্পৃহা, মানসিক চাপকে শিশুকাল থেকে অ্যাড্রেস করা হলে এই অস্থিরতা, প্রতিযোগিতা ও বৈষম্য দূর করা সম্ভব।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, করোনাকালে বৈষম্যহীনতা পরিষ্কারভাবেই বিশ্বজুড়ে ফুটে উঠেছে। যার প্রভাব আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল এবং ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ সংকট উত্তরণের সেক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল।

ঢাবির ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান জোবেদা খাতুন স্বাগত বক্তব্যে বলেন, শারীরিক স্বাস্থ্যের মতো মানসিক স্বাস্থ্যের পরিচর্যা প্রয়োজন। তবে বিশ্ব জুড়েই মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়টি অবহেলিত হয়ে আসছে। তিনি এ বিষয়ে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। স্টিগমা ও কুসংস্কার দূর করে প্রতিটি মানুষের কাছে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করেন তিনি।

ড. মোহম্মদ মাহমুদুর রহমান বলেন, করোনা মহামারির আর্থ-সামাজিক প্রভাবেও দেখা গেছে যে দারিদ্র ও বৈষম্যের শিকার জনগোষ্ঠীর মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্রকোপও অতিমাত্রায় বেড়েছে। তিনি উল্লেখ করেন, একটি গবেষণায় দেখা গেছে, দেশের জনসংখ্যার শতকরা ১৭ ভাগ মানুষ কোনো না কোনো মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। এরমধ্যে মাত্র ৮ শতাংশ মানুষ মানসিক স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে ও ৯২ শতাংশ মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা থেকে। এই পরিস্থিতি দূর করতে যেমন বাড়াতে হবে মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মান, তেমনি মানসিক চাপ ও মানসিক স্বাস্থ্যহানির গভীর কারণগুলো দূর করার জন্য নিতে হবে গবেষণালব্ধ কার্যকর স্ট্র্যাটেজি। যেখানে আমাদের জাতীয় লক্ষ্য হতে হবে আগামী দশ থেকে বিশ বছরের মধ্যে দেশে মানসিক রোগীর হার ৭ শতাংশে নামিয়ে আনার ব্যবস্থা করা।

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন:করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

more

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here