ওমিক্রনে বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট ও বাংলাদেশঃ কতটা কার্যকর টিকা?

0
40

কোভিড-১৯; খুব বেশী দিন আগের কথা নয়। আমাদের দেশসহ সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাস নামে এক অজানা আতংক ভর করেছিলো। স্থবির করে দিয়েছিলো স্বাভাবিক জীবন যাপন। কর্ম চঞ্চলতা থেমে গিয়েছিলো। বেকার হয়ে পড়েছিলো বাড়ির কর্মক্ষম ব্যক্তি। স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় শিক্ষাব্যবস্থাও হুমকির মুখে পড়েছিলো। হাসপাতালের বারান্দায় কান্নার রোল পড়েছিলো। সামাজিক দূরত্বের বাধা পড়েছিলো সম্পর্কের দেয়ালে। মৃত বাবার লাশে ফেলে গিয়েছিলেন সন্তান। গত বছরের এই দিনগুলোর কথা হয়ত অনেকের কাছে দুঃসহ স্মৃতি হয়ে থাকবে।

আবারো দানা বেঁধেছে আতংক। বিশ্বের ১৩ টি দেশে করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েশন ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। মনে প্রশ্ন জেগে উঠছে, নতুন এই ভ্যারিয়েশন কি টিকার সুরক্ষা ভেদ করতে পারবে? নতুন ভ্যারিয়েশনের প্রভাব ও ভয়াবহতা নিয়ে উদ্বিগ্ন সবাই।

ওমিক্রন যেসব দেশে শনাক্ত হয়েছে , চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক-

দক্ষিণ আফ্রিকাঃ রাজধানী জোহানেসবারগ নিয়ে গঠিত দক্ষিণ আফ্রিকার একটি প্রদেশের পিসিআর পরীক্ষায় পাওয়া নমুনায় দেখা গেছে যে এ সপ্তাহের মাঝামাঝি দক্ষিণ আফ্রিকায় মোট করোনা শনাক্ত ১ হাজার ১০০ রোগীর মধ্যে ৯০ শতাংশ ওমিক্রন ভ্যারিয়েশনে আক্রান্ত।

বতসোয়ানাঃ দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সীমান্ত লাগোয়া দেশ বতসোয়ানার কমপক্ষে ১৯ জনের ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যঃ দেশটিতে তিনজন ওমিক্রণ ধরণ হিসেবে শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্ত সকলে দক্ষিণ আফ্রিকায় সফরে গিয়েছিলেন।

জার্মানঃ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে মিউনিখ বিমানবন্দরে যাওয়া দুজনের শরীরে ওমিক্রনের ভ্যারিয়েশন পাওয়া গিয়েছে। এ এফপির বরাত থেকে জানা।

নেদারল্যান্ডসঃ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে নেদারল্যান্ডস যাওয়ার পথে কয়েকশ যাত্রীর মধ্যে ৬১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে ১৩ জন ওমিক্রন ধরণের।

ডেনমার্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যাওয়া দুইজনের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে।

বেলজিয়ামঃ ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে বেলজিয়ামে একজনের ওমিক্রনে শনাক্ত হয়েছে।

ইসরায়েলঃ এখন অব্দি দুইজনের ওমিক্রন শনাক্ত থাকার খবর জানিয়েছে দেশটি।

ইতালিঃ একজন আক্রান্ত ওমিক্রনে।

চেক প্রজাতন্ত্রঃ স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে একজনের শনাক্ত থাকার খবর জানিয়েছে।

হংকংঃ ওমিক্রন শনাক্ত সন্দেহে দুইজনকে হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে।

অষ্ট্রেলিয়াঃ নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যে দুইজন ওমিক্রনে আক্রান্ত। তারা সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরেছেন।

কানাডাঃ সম্প্রতি নাইজেরিয়া সফর করা দুইজনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে।

এতো গেলো বিশ্বব্যাপী ওমিক্রনের অবস্থা। ওমিক্রন নিয়ে কিছু বিপজ্জনক তথ্য দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনার আগের ভ্যারিয়েশন আলফা, বেটা, গামা, ডেল্টার থেকে ওমিক্রন অনেকটা ভয়াবহ আকারের। নতুন এই ভ্যারিয়েশনের অন্তত ৩২টি মিউটেশন (জিনগত গঠনের পরিবর্তন) ঘটিয়েছে – যার বৈজ্ঞানিক নাম বি.১.১.৫২৯। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে মিউটেশন ছিল ১০টি আর বেটায় ৬টি। আর ওমিক্রনের ‘ইউনিক’ মিউটেশনের সংখ্যা এর অনেক বেশি – মোট ২৬টি। এতেই বোঝা যায় একে মোকাবিলা করা কত কঠিন হতে পারে।

ওমিক্রন নিয়ে বিজ্ঞানীরা যে কারণে সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন তা হলো: এটি অত্যন্ত দ্রুত এবং সহজে ছড়াতে পারে এবং মানবদেহের রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থাকে এড়াতে পারে – যার ফলে এর বিরুদ্ধে টিকা কম কার্যকর হবে বলে মনে করা হচ্ছে । পৃথিবীর কোটি কোটি মানুষ ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন। তারা এখন কতটা নিরাপদ – তা নিয়েও তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। ফাইজার, এ্যাস্ট্রাজেনেকা, মডার্না, সিনোভ্যাক, স্পুটনিক – এসব টিকা ওমিক্রনের বিরুদ্ধে কতটা কার্যকর হবে?

ওমিক্রন কতটা মারাত্মক রূপ নিতে পারে – এ সম্পর্কে এখনো খুব বেশি কিছু জানা যায়নি। বিজ্ঞানীরা বলছেন, তারা যেসব পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন তার ফলাফল পেতে আরো দুই-তিন সপ্তাহ লাগবে। এর মধ্যে প্রতিদিনই নতুন নতুন দেশে ওমিক্রন আক্রান্ত ব্যক্তি খুঁজে পাবার খবর পাওয়া যাচ্ছে। বিভিন্ন দেশ যারা করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধ বা লকডাউন শিথিল করেছিল বা করতে যাচ্ছিল – তারা এখন নতুন করে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে, মাস্ক পরা ও জনসমাগম এড়াতে নানা নির্দেশ কার্যকর করছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রোববার দেয়া তাদের বিবৃতিতে স্পষ্ট করেই বলেছে, ‘ওমিক্রনের সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি অত্যন্ত উচ্চ।’

দক্ষিণ আফ্রিকায় এখন পর্যন্ত সীমিত নমুনার ভিত্তিতে ডাক্তাররা দেখেছেন যে ‘ব্রেক-থ্রু ইনফেকশন’ – অর্থাৎ যারা ইতোমধ্যেই টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে ওমিক্রন আক্রান্ত হবার হার – বেশি বলে দেখা গেছে।

ইতিমধ্যে বাংলাদেশও অক্ষিন আফ্রিকার সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। যদিও রাস্তায় শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার আন্দোলন, বিএনপির রাজনৈতিক সমাবেশসহ মাস্ক না পড়া- বিবিধ কারণে একটু খাপছাড়া অবস্থায় আছে বাংলাদেশ। ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ কিছুটা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছিলো। সরকারের নজরদারী বৃদ্ধি করতে হবে।

ওমিক্রনের আঘাত হানার আগেই আমাদের শতভাগ টিকা ও মাস্ক পড়া নিশ্চিত করতে হবে। এটাই হবে সুরক্ষার প্রথম ও শেষ অবলম্বন।

তথ্যসুত্রঃ বিবিসি, লাইভ মিন্ট

লিখেছেন- শরীফুল সাগর

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে 

“মনের খবর” ম্যাগাজিন পেতে কল করুন ০১৮ ৬৫ ৪৬ ৬৫ ৯৪

 

শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।
       
 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here