আত্মহত্যা প্রতিরোধ সচেতনতায় বিএসএমএমইউতে নানা আয়োজন

আত্মহত্যা প্রতিরোধ সচেতনতায় বিএসএমএমইউতে নানা আয়োজন
মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা এতে উপস্থিত ছিলেন

আন্তর্জাতিক আত্মহত্যা প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে বিশেষ কর্মসূচী পালন করছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) মনোরোগবিদ্যা বিভাগের ‘সুইসাইড প্রিভেনশন ক্লিনিক’।

আজ সোমবার (১২ আগস্ট) ‘সুইসাইড প্রিভেনশন ক্লিনিক’ এর উদ্যোগে দিনব্যাপী নানান কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। এদিন সকালে বিএসএমএমইউ এর শহীদ ডা. মিলন হলে ‘কর্মের মধ্যে বেঁচে থাকার’ আশা প্রতিপাদ্য নিয়ে বিশেষ সেমিনার, আলোচনা সভা, প্রশ্নোত্তর কর্মসূচি শুরু হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন, বিএসএমএমইউ এর ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, প্রফেসর ডা. গোলাম রব্বানী, প্রফেসর ডা. ওয়াজিউল আলম চৌধুরী, প্রফেসর ডা. ঝুনু শামসুন্নাহার, প্রফেসর ডা. বিধান রঞ্জন রায় পোদ্দার প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, আত্মহত্যা প্রতিরোধে সচেতনতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আত্মহত্যাকারীরা প্রত্যেকেই মৃত্যুর আগে কাছের লোকজনদেরকে নানাভাবে ইঙ্গিত দিয়ে থাকে। এসময়টা খুব গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে তাদের ফেরাতে হয়। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনকভাবে অনেকেই সেসব ইশারাকে সিরিয়াস ভাবেন না। যার কারণে অনেক আত্মহত্যা প্রতিরোধ করেন না।

উপস্থিত দর্শকদের নানা প্রশ্নের উত্তরে বক্তারা বলেন, আত্মহত্যাকারী মানসিকভাবে চাপে থাকেন। সম্পর্ক বিচ্ছেদ, পরীক্ষার ফলাফল, ক্যারিয়ার ভাবনা, ঋণের ভার, পারিবারিক কলহ, সামাজিক হয়রানিসহ নানান কারণে মানুষ আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যাপূর্ব সময়ে কমবেশি সবাই ড্রিপ্রেশনে ভোগে। যার ফলে নিজের মৃত্যু ছাড়া আর কোনো সমাধান খুঁজে পান না।

এজন্য যারাই হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে এবং নানাভাবে আত্মহত্যার মতো বিষয়ে কথা বলে কিংবা, এ নিয়ে কৌতুহল প্রকাশ করে তাদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। প্রয়োজনে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের এর তত্ত্বাবধানে রেখে চিকিৎসা দিতে হবে। প্রয়োজনে সাইকিয়াট্রিস্টস, সাইকোলজিস্ট, সোশ্যাল ওয়ার্কারদের সমন্বয়ে যৌথ কাউন্সেলিং করাতে হবে এবং প্রয়োজনমাফিক ঔষধ সেবন করাতে হবে।

দিনব্যাপী আয়োজনের প্রথম সেশনে ‘আত্মহত্যার ঝুঁকি ও জীবন বাঁচানোর কৌশল’ প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন, সাইকিয়াট্রি বিভাগের রেসিডেন্ট (এমডি) ডা. ফাতেমাতুয জোহরা জ্যোতি।

প্রেজেন্টেশনের ওপর আলোচনা ও দর্শকদের প্রশ্নের উত্তর দেন বিশেষজ্ঞ প্যানেল। এসময় বক্তব্য রাখেন, প্রফেসর ডা. এমএসআই মল্লিক, প্রফেসর ডা. হাসান জাহিদুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. কামরুল হাসান, প্রফেসর সুরাইয়া বেগম, প্রফেসর ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব।

দ্বিতীয় সেশনে প্রেজেন্টশন উপস্থান করেন, সাইকিয়াট্রি বিভাগের রেসিডেন্ট (এমডি) ডা. নূর ই আলম। এই পর্বে বিশেষজ্ঞ প্যানেলে আলোচনা করেন, প্রফেসর ডা. মোহিত কামাল, প্রফেসর ডা. সোহেল মাহমুদ আরাফাত, প্রফেসর এ.কে কামরুল হুদা, প্রফেসর ডা. সুলতানা আলগীন, ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ।

মনোরোগবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. নাহিদ মাহজাবিন মোর্শেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন, ‘সুইসাইড প্রিভেনশন ক্লিনিক’ এর চিফ কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ডা. মহসিন আলী শাহ। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন, সাইকিয়াট্রি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সিফাত-ই সাঈদ।

/এসএস/মনেরখবর/

No posts to display

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here