সময়ানুবর্তীতার অভ্যাস গড়তে অনুসরণ কিছু সহজ উপায়

0
41
সময়ানুবর্তীতার অভ্যাস গড়তে অনুসরণ কিছু সহজ উপায়

অনেকেরই এমন সমস্যায় ভুগতে হয় যে, দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাজে বিভিন্ন সময় অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে হলেও দেরি হয়েই যায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার কিছু সহজ উপায় রয়েছে।

আমাদের সবারই জীবনে কম বেশী দেরী হয়ে যাওয়া নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়ার স্মৃতি বা অভিজ্ঞতা রয়েছে। অফিসে দেরি, মিটিং-এ পৌঁছাতে দেরি, দাওয়াতে দেরি, কিংবা ঘুরতে যাওয়ার সময় নিজের দেরি হয়ে যাওয়ায় অন্যদের বিড়ম্বনায় ফেলা। এগুলো অনেকের জীবনেরই বেশ নিত্যনৈমিত্তিক দুঃখের ঘটনা।

অনেকে চাইলেও এই সমস্যাগুলো এড়িয়ে যেতে পারে না। যে কোন কারণেই হোক, দেরি হয়েই যায়। মনস্তত্ত্ববিদগণ সব সময় দেরি হওয়ায় বিড়ম্বনার শিকার এসব মানুষের জন্য সময়ানুবর্তী অভ্যাস গড়ে তোলার কিছু সহজ কৌশল নির্দেশ করেছেন। নিচে সেগুলো উল্লেখ করা হল।

যে কোন কাজের জন্য একটি নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করুন

কাজে দেরি হওয়া বা সময়ের পূর্বে না পৌঁছাতে পারার সমস্যা এড়াতে যে কোন কাজ করার আগে সেই কাজের জন্য কতটুকু সময় লাগতে পারে বা পৌঁছাতে কত সময় লাগতে পারে তার একটি নির্দিষ্ট ছক তৈরি করে সেই অনুসারে কাজ করুন।

যাত্রা পথের সব কাজের সময় নির্ধারণ করুন

কোথাও যেতে হলে যাত্রার পূর্বে যাত্রা পথের সব ধরণের কাজ যেমন- যান বাহনের সময়, হাঁটা বা গাড়ী পার্কিং এর সময় বা লিফট ও সিঁড়ি পথের সময় সব কিছুর আলাদা আলাদা সময় হিসাব করে সেই অনুসারে হাতে সময় রেখে ঘর থেকে বের হলে দেরি হওয়ার আশংকা থাকে না।

বিশেষ মনযোগ দিন

সময়ানুবর্তী হয়ে ওঠার প্রতিটি ধাপকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে প্রতিটি কাজ মনোযোগের সাথে করুন।

সব কিছু দ্রুত করার মানসিকতা রাখুন

দেরি হয়ে যেতে পারে এটি ভেবে দুশ্চিন্তা বা মন খারাপ না করে বরং দেরি হবে না সেই মানসিকতা লালন করুন। সবকিছু দেরিতে নয় বরং আপনি দ্রুত ও সময়ের মধ্যেই করতে পারবেন এই মানসিক প্রস্তুতির সাথে সব কাজ করুন।

সময়ের আগে পৌঁছানোর প্রয়াস করতে পারেন

সময় মতো পৌঁছাতে আরেকটি কাজ বেশ সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে। আর সেটি হল সঠিক সময়ের কিছুটা আগে পৌঁছানোর প্রয়াস করা। অনেকেই সময়ের আগে পৌঁছানোকে সময় নষ্ট করা ভাবতে পারেন। কিন্তু এটি মোটেও তেমন কোন বিষয় নয় বরং এর ফলে দেরি হয়ে যাবার সম্ভাবনা একেবারেই থাকে না।

যে কোন কাজের আগে একটি সুনির্দিষ্ট কর্ম পরিকল্পনা তৈরি করুন

যাদের সব কাজে দেরি হয়ে যায় তারা পরবর্তী দিনের কর্ম পরিকল্পনা আগের দিন রাতে করে রাখতে পারেন। দিনের কোন সময়ে কি কাজ রয়েছে এবং সেটি কিভাবে সম্পন্ন করবেন সেটি আগেই নির্ধারণ করে রাখলে বিড়ম্বনার সুযোগ অনেকটাই কমে যায়।

সব সময়ে দেরি হয়েই যায়- এমন মানসিকতা দেরি হয়ে যাওয়ার সমস্যাকে আমাদের স্বভাবে পরিণত করে। তাই এই মানসিকতা থেকে আগে বেরিয়ে আসতে হবে। আমাদের আগে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হতে হবে যে আমরা অবশ্যই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সক্ষম হব এবং তারপর উপরের কৌশলগুলো অনুসরণ করলে অবশ্যই এতে সফলতাও পাবো।

লিংক: https://www.psychologytoday.com/intl/blog/how-be-yourself/202109/how-stop-being-late

অনুবাদ করেছেন: প্রত্যাশা বিশ্বাস প্রজ্ঞা

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।
       
 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here