শিল্পে কোনো খারাপ মানুষের স্থান নেই: অভিনেতা ফারুক

0
21
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

[int-intro]অভিনয় জগতের সুপরিচিত মুখ তিনি। ভালো থাকেন তিনি কাজের মধ্যে। তিনি চেয়েছিলেন গতানুগতিক কিংবা রুটিন মাফিক জীবনের বাইরে গিয়ে সকলের সাথে পরিচিত হতে। তিনি অভিনেতা ফারুক। মনেরখবরের এবারের অতিথি হয়ে তিনি জানাচ্ছেন তাঁর মনের খবর। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন মুতাসিম বিল্লাহ নাসির। [/int-intro]

[int-qs]কেমন আছেন?[/int-qs]

[int-ans] ভালো।[/int-ans]

[int-qs]কেন ভালো আছেন?[/int-qs]

[int-ans]কাজে কর্মে আছি এজন্য ভালো আছি।[/int-ans]

[int-qs]ভালো থাকাটা কেন জরুরি?[/int-qs]

[int-ans]মন ভালো থাকলে শরীর ভালো থাকে। [/int-ans]

[int-qs]ভালো থাকার জন্য আপনি কোন কোন বিষয়ের দিকে খেয়াল রাখেন এবং ভালো রাখার চেষ্টা করেন?[/int-qs]

[int-ans]ভালো থাকার জন্য কাজ করি। প্রচুর কাজের উপর থাকি। এছাড়াও পড়াশুনা করি, গান শুনি।[/int-ans]

[int-qs]ভালো থাকতে প্রতিদিনই জরুরি নাকি বিশেষ দিনে বিশেষ পরিকল্পনা জরুরি?[/int-qs]

[int-ans]প্রতিটা দিনই জরুরি।[/int-ans]

[int-quote]আমার ইচ্ছা ছিল আমি এমন কিছু করব যেটা সাধারণত সবাই করে না। ব্যাংকার কিংবা বিসিএস ক্যাডার এগুলো হওয়ার ইচ্ছা আমার কখনও ছিল না। সারাদিন রুটিন মাফিক কাজ আমার পছন্দ ছিল না। আমার আরেকটি ইচ্ছে ছিল মানুষ যেন আমাকে চেনে ও বুঝে।[/int-quote]

[int-qs]মন খারাপ হয়?[/int-qs]

[int-ans]না, মন খারাপ হয় না। ছোটবেলায় হতো।[/int-ans]

[int-qs]দুঃখ-কষ্ট রাগ হিংসা এগুলোকে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]

[int-ans]একেক মানুষ একেক বৈচিত্রের হয়।[/int-ans]

[int-qs]রাগ করেন?[/int-qs]

[int-ans]করি।[/int-ans]

[int-qs]কি হলে রেগে যান?[/int-qs]

[int-ans]খাবার দিতে দেরি হলে, চিনি সহ চা দিলে, অলস লোক দেখলে রাগ হয়। ধীর গতির কাজ দেখলে বা টাইম টু টাইম কাজ শেষ না হলে রাগ হয়।[/int-ans]

[int-qs]রাগ নিয়ন্ত্রণ দরকার?[/int-qs]

[int-ans]অবশ্যই প্রয়োজন। “ক্রোধে পাপ ক্রোধে তাপ ক্রোধে অপচয়, ক্রোধে সর্বনাশ হয় ক্রোধে অবক্ষয়।” তাই রাগ নিয়ন্ত্রণ জরুরি।[/int-ans]

[int-img name=””]https://monerkhabor.com/wp-content/uploads/2016/04/২.jpg[/int-img]

[int-qs]হিংসা আছে?[/int-qs]

[int-ans]আছে।[/int-ans]

[int-qs]ভালোবাসার প্রবণতা আপনার মধ্যে কতটুকু?[/int-qs]

[int-ans]প্রবল।[/int-ans]

[int-qs]ভালোবাসার ব্যাপারটিকে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]

[int-ans]খুব সুন্দর ভাবে দেখি। সবাই ভালোবাসাকে সুন্দর ভাবে দেখে। ধরুন যে ডাকাত সেও ভালোবাসাকে ভালো ভাবে দেখে। ভালোবাসাকে খারাপ ভাবে দেখার লোক খুব কম।[/int-ans]

[int-qs]আরেকবার ভালোবাসার সুযোগ পেলে কাকে ভালোবাসতেন?[/int-qs]

[int-ans]আমার স্ত্রীকে।[/int-ans]

[int-qs]কখনও মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়েছেন?[/int-qs]

[int-ans]ছোটবেলায় হতাম। এখন হই না। [/int-ans]

[int-qs]মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]

[int-ans]মানসিক স্বাস্থ্য সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য। মানসিক সুস্থতা না থাকলে শারীরিক সুস্থতা থাকে না। [/int-ans]

[int-qs]স্বপ্ন দেখেন?[/int-qs]

[int-ans]স্বপ্ন ছাড়া মানুষ এক পাও এগোতে পারে না যে![/int-ans]

[int-qs]কি ধরনের স্বপ্ন দেখেন?[/int-qs]

[int-ans]আমার ইচ্ছা ছিল আমি এমন কিছু করব যেটা সাধারণত সবাই করে না। ব্যাংকার কিংবা বিসিএস ক্যাডার এগুলো হওয়ার ইচ্ছা আমার কখনও ছিল না। সারাদিন রুটিন মাফিক কাজ আমার পছন্দ ছিল না। আমার আরেকটি ইচ্ছে ছিল মানুষ যেন আমাকে চেনে ও বুঝে।[/int-ans]

[int-qs]অন্যরা যাতে আপনাকে ভালোবাসে, অন্যদের যাতে ভালো লাগে সে ব্যাপারে কতটুকু সচেতন থাকেন?[/int-qs]

[int-ans]এ ব্যাপারে আমি অনেক সচেতন। আমি সবাইকে ভালোবাসি। সে একজন প্রোডাকশন বয় হলেও আমি তার সাথে গল্প করি। সবাই আমাকে ভালো বলুক এজন্য না। আমার পরিবার থেকে আমি এ শিক্ষা পেয়েছি। বাবা গভর্মেন্ট ল্যাবরেটরী স্কুলের শিক্ষক ছিলেন। সেজন্য ভালো পরিবেশে বড় হয়েছি। ভালো ব্যবহার ভালো পরিবার থেকে আসে। যারা রূঢ় ব্যবহার করে তাদের দেখবেন যে তারা মানসিক ভাবে অশিক্ষিত অথবা পারিবারিক ভাবে অসুস্থ। তারা পরনিন্দা করে, একজনের কথা আরেকজনের কাছে লাগায়।[/int-ans]

[int-img name=””]https://monerkhabor.com/wp-content/uploads/2016/04/৩.jpg[/int-img]

[int-qs]নিজের কাছে মানুষ হিসেবে আপনি কেমন?[/int-qs]

[int-ans]ফিফটি ফিফটি।[/int-ans]

[int-qs]আপনার জীবনে মানসিক শক্তির প্রভাব কতটুকু? [/int-qs]

[int-ans]শিল্পে কোনো খারাপ মানুষের স্থান নেই। বিখ্যাত ডাকাত ডাকাতি করছে এবং সে গান করছে এমন নেই। শিল্পে ভালো মানুষ হতে হবে। সেজন্য মানসিক সুস্থতা জরুরি। নিয়মানুবর্তিতা, সময়ানুবর্তিতা, সিনসিয়েরিটি। আমি থিয়েটার করছি ২৫ বছর। টাইম টু টাইম গিয়েছি। এখন যদিও মিডিয়াতে অসৎ মানুষ চলে এসেছে। যার কারণে হিংসা ঈর্ষা ঢুকে গেছে।[/int-ans]

[int-qs]নবীনদের এবং আপনার ভক্তদের উদ্দেশ্যে আপনার কোনো কথা আছে?[/int-qs]

[int-ans]ভক্তদের উদ্দেশ্যে বলবো আপনারা ভালো থাকবেন। আমার নাটক বেশি বেশি দেখবেন। আর নবীনদের বলবো পড়, পড় এবং পড়। যতোই পড়বে ততো তোমার উৎকর্ষতা বাড়বে। কাউকে যদি এক বছর একটি রুমে আটকে রেখে বই পড়ানো হয় এবং এক বছর পরে যদি তাকে সেখান থেকে বের করা হয় তাহলে সে একজন আলাদা জগতের বাসিন্দা হয়ে বের হবে। শিল্পে অশিক্ষিত লোকের স্থান নেই। ধান্দাবাজেরা বেশিদিন টিকতে পারে না। ভালো শিল্পী হতে চাইলে আস্তে আস্তে পথ অতিক্রম করে আসতে হবে। একদিনে কিংবা হঠাৎ করে চাইলে হবে না। চেষ্টা, সততা, পরিশ্রম এগুলো দরকার।[/int-ans]

[int-quote]শিল্পে কোন খারাপ মানুষের স্থান নেই। বিখ্যাত ডাকাত ডাকাতি করছে এবং সে গান করছে এমন নেই। শিল্পে ভালো মানুষ হতে হবে। সেজন্য মানসিক সুস্থতা জরুরি। নিয়মানুবর্তিতা, সময়ানুবর্তিতা, সিনসিয়েরিটি। আমি থিয়েটার করছি ২৫ বছর। টাইম টু টাইম গিয়েছি। এখন যদিও মিডিয়াতে অসৎ মানুষ চলে এসেছে। যার কারণে হিংসা ঈর্ষা ঢুকে গেছে। [/int-quote]

more

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here