মানসিক স্বাস্থ্য সেবায় ডাটাবেস তৈরি

মানসিক স্বাস্থ্য সেবায় ডাটাবেস তৈরি

সামারিটানস এবং জেরেমি করবিন এবং ডাভিনা ম্যাককল হাব অব হোপ এর প্রশংসা করেন কেননা এটি মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার একদম মূলের দিকে খেয়াল করে যেসব প্রতিষ্ঠান মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় রোগীদের সাহায্য ও সমর্থন করে সেসব প্রতিষ্ঠানকে একত্রিত করেছে।
ওয়েব ভিত্তিক এই এপ্লিকেশনটির লক্ষ্য মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের সাহায্য চাইতে এবং তাদের যেকোনো অসুবিধায় এগিয়ে আসা। তারা তাদের ডিভাইসে এই এপ্লিকেশনটি ব্যবহারের মাধ্যমে তারা যে জায়গায় অবস্থান করছে তা এপ্লিকেশনটিতে সংযুক্ত থাকবে এবং তার অবস্থানরত জায়গার আশেপাশে যেসব সেবা থাকবে তার ঠিকানা তারা নিমিষেই পেয়ে যাবেন।
সিটিএস প্রতিষ্ঠাতা এবং কমেডিয়ান জ্যাক মিলস বলেন, “আমি যখন জনসম্মুখে আমার মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা এবং আমার আত্মহত্যার চেষ্টা নিয়ে আলোচনা করি তখন আমি যারা মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে লড়াই করছে এবং ঘুরে দাঁড়ানোর কোন জায়গা পাচ্ছে না এমন অনেক ব্যক্তিদের কাছ থেকে বার্তা পাই। আমি খুব জলদি বুঝতে পারলাম আমি ও ঘুরে দাঁড়ানোর জায়গা পাই নি”।
তিনি আরও বলেন, “আমি এটিকে আমার দায়িত্ব করে নিলাম যে এই ধরণের ভুক্তভোগীদের যে সাহায্য দরকার তা আমি খুঁজে বের করব এবং একত্রিত করব। আমি চেয়েছিলাম মানুষের সাহায্য প্রার্থনা কে এতটাই সহজ করে দেব যেন তাদের কোন বাঁধার সম্মুখীন না হতে হয়। তৃণমূল সম্প্রদায় থেকে জাতীয় পর্যায়ের দাতব্য সংস্থা গুলোর কাছে তুলে ধরি আমার আবেদন। আমাদের সবার জানা উচিৎ আমাদের জন্য কি কি সাহায্য রয়েছে হতে পারে আমাদের নিজেদের জন্য অথবা আমদের ভালবাসার মানুষের জন্য। আমরা মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার ব্যাখ্যা পরিবর্তন করতে চাই এবং দেখাতে চাই যে কারোর সমস্যা হলে তাদের জন্য সাহায্য রয়েছে।কাউকে আর একা একা কষ্ট পেতে হবে না। যাই হোক না কেন সবসময় আশা করার জন্য কিছু না কিছু থেকে যায়”।
এই ডাটাবেসটির বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। যত সংস্থা অনলাইনে তাদের নাম এবং বৃত্তান্ত নিবন্ধন করবে এই ডাটাবেস তা সংরক্ষণ করবে। যার যেমন সাহায্য দরকার এবং যার পাশে যে সংস্থা থাকবে তাকে সে সংস্থার ঠিকানা দেয়া হবে।
লিভারপুল এর মাশবো এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গভিন শেরাট বলেন, “জ্যাক যা করছে তার উপর আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমরা মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত আরও ব্যক্তিদের তাদের প্রয়োজনীয় সাহায্য সঠিক সময়ে পাওয়ার ব্যবস্থা করার জন্য এবং জ্যাকের যুদ্ধে অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুত। আমরা হাব অব হোপ তৈরি নিয়ে খুবই উত্তেজিত এবং এটি যেন ইতিবাচক ভাবে মানুষের জীবনে প্রভাব ফেলে এবং তাদের যেন কখনোই মনে না হয় তারা একা সেদিকে খেয়াল রেখে আমরা আমাদের সর্বাত্মক দক্ষতার ব্যবহার করেছি”।
তথ্যসূত্র-
(https://www.prolificnorth.co.uk/2017/07/mental-health-database-created-by-mashbo/)
কাজী কামরুন নাহার, আন্তর্জাতিক ডেস্ক
মনেরখবর.কম
 
 

No posts to display

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here