মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য বিপদজনক যত জনপ্রিয় খাবার

0
31
ছবিঃ ইন্টারনেট
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

খাদ্যাভ্যাস শুধু শরীরে নয় মনের ওপরেও প্রভাব রাখে। মানসিক চাপে থাকলে অনেক সময় ভাজা-পোড়া মুখরোচক খাবার খেতে ইচ্ছে হয়। মন খারাপের সময়ে আবেশ কাটাতে অনেকেই কফি পান করেন। কেউ আবার বিষন্নতায় দেবদাস হয়ে মদও ধরেন।

তবে বিষয় হল এগুলোর কোনোটাই মনের স্বাস্থ্যে ভালো প্রভাব ফেলে না। অবাক হচ্ছেন! কেনো?

এই বিষয়ে ‘ইট দিস নট দ্যাট’ ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বিস্তারিত জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিবন্ধিত পুষ্টিবিদ সিডনি গ্রিন।

ক্যাফেইন: কফি, চকোলেট, সোডা বা এই ধরনের ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় বা খাবার মনের ওপর প্রভাব ফেলে।

গ্রিনের মতে, “খাদ্যাভ্যাসে অতিরিক্ত ক্যাফেইন যোগ করা উদ্বেগ বাড়ায়। অতিরিক্ত বলতে ৪০০ মি.গ্রা. বা ৪ কাপের বেশি কফি। কারণ এটা মস্তিষ্কের যে অংশ হুমকি বা বিপদ চিহ্নিত করে সে অঞ্চল উদ্দীপ্ত করে।”

এছাড়াও ক্যাফেইন উদ্বেগ কমাতে সক্ষম মস্তিষ্কের এমন অঞ্চলকে অকেজো করে দেয়।

আর যদি মন-মানসিকতা খারাপ থাকে অর্থাৎ মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে জটিলতায় থাকলে অতিরিক্ত ক্যাফেইন সমস্যা আরও বাড়িয়ে দেয়।

 

অ্যালকোহল

দেবদাস হয়ে মদ পান করছেন? তবে মাথায় রাখুন, মানসিক যন্ত্রণা আরও ভয়াবহ করে তোলে অ্যালকোহল।

গ্রিন বলেন, “সারা রাত অ্যালকোহল বিপাকে শরীরকে পরিশ্রম করতে হয়। ফলে ভালো ঘুমের পর্যায় যেতে বেগ পেতে হয়। যা সামগ্রিকভাবে ঘুমের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।”

তিনি আরও বলেন, “গবেষণায় দেখা যায়, ১০ ঘণ্টা ঘুমের ঘাটতি দেহে ৫০০ ক্যালরি বাড়িয়ে দেয় যা মন মেজাজের ওপর বিরক্তিকর প্রভাব ফেলে।”

ঘুম চক্রকে অবহেলা করা ঠিক নয়। এটা মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলে এবং অ্যালকোহল গ্রহণ, বিশেষ করে রাতে পান করা মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।

কৃত্রিম মিষ্টি

মন ভালো রাখতে প্রক্রিয়াজাত খাবার ও কৃত্রিম মিষ্টি থেকে দূরে থাকা প্রয়োজন।

গ্রিন বলেন, “গবেষণায় প্রাথমিকভাবে জানা গেছে কৃত্রিম মিষ্টি অন্ত্রে ক্ষতিকর ব্যাক্টেরিয়ার পরিমাণ বাড়িয়ে পেটের স্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। যা মন খারাপ ও উদ্বেগের মাত্রা বাড়ায়। তবে এই ক্রিয়া কীভাবে সংগঠিত হয় তা জানার জন্য আরও গবেষণার প্রয়োজন।”

মহামারীর সময়ে অনেকেই মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা ভুগছেন। এর মাত্রা আরও বেড়ে যায় প্রক্রিয়াজাত খাবার ও চা বা পানীয়তে কৃত্রিম মিষ্টি যোগ করলে।

ভাজা খাবার

ভাজা-পোড়া খাবার স্বাস্থ্যের জন্য যে ভালো না তা জানা কথা। তবে এই ধরনের খাবার শরীরে নেতিবাচক প্রভাব ফেলার পাশাপাশি মনের ওপরেও বাজে প্রভাব ফেলে।

জাপানের ‘নিপ্পন মেডিকেল স্কুল’ ও ‘সেন্টার ফর পাবলিক হেল্থ সায়েন্স’য়ের গবেষণা অনুযায়ী, ভাজাপোড়া খাবার হতাশার সহনশীলতার মাত্রা কমায়।

২০১৬ সালে করা এই গবেষণার ফলাফলে জানানো হয়, ভাজাপোড়া খাওয়া হতাশা বা উদ্বেগের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে। তাছাড়া এটা কেবল শরীরই খারাপ করে না পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যেরও অবনতি ঘটায়।

সুত্রঃ ‘ইট দিস নট দ্যাট’ ওয়েবসাইট

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

“মনের খবর” ম্যাগাজিন পেতে কল করুন ০১৮ ৬৫ ৪৬ ৬৫ ৯৪

 

more

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here