আমি বিগ ড্রিমার : হাবিবুল বাশার সুমন

0
85
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

[int-intro] তাঁরও আছে রাগ, হিংসা। আছে স্বপ্ন। স্বপ্ন দেখার সাহস। জীবনটা তাঁর কাছে সৎ থাকা, মানুষের কাছে সম্মান পাওয়া আর স্বপ্নগুলো সত্যি করার লড়াই। তিনি হাবিবুল বাশার সুমন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক। এক সময়ের দেশ সেরা খেলোয়াড়। মনের খবরের বিশেষ সাক্ষাৎকারে তাঁর মুখোমুখি হয়েছেন আরমান কামাল। ছবি তুলেছেন মীর ফরিদ। [/int-intro]
[int-qs]কেমন আছেন?[/int-qs]
[int-ans]ভালো আছি।[/int-ans]
[int-qs]কেন ভালো আছেন?[/int-qs]
[int-ans]ভালো থাকার চেষ্টা করি। সবার লাইফেই প্রবলেম থাকে। আমারও আছে। তারপরও চেষ্টা করি ভালো থাকার।[/int-ans]
[int-qs]ভালো থাকাটা কি জরুরি?[/int-qs]
[int-ans]খুব জরুরি।[/int-ans]
[int-qs]কেন?[/int-qs]
[int-ans]বেঁচে থাকার জন্য ভালো থাকাটা খুব জরুরি। খারাপ থাকলে বেঁচে থাকাটা খুব মুশকিল হয়ে যায়। সেজন্য সবসময় ভালো থাকতে চেষ্টা করি।[/int-ans]
[int-qs]ভালো থাকতে কোন দিকগুলো ভালো থাকতে হবে বা ভালো রাখতে হবে?[/int-qs]
[int-ans]সৎ থাকাটা খুব জরুরি। যে কাজই করি না কেন, সৎ থাকতে হবে। কারো উপকার করতে না পারলেও অপকার করা যাবে না। কারণ কারো ক্ষতি করলে সেটা ভালো থাকার পথে খুব বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। নিজেকে পোড়ায়। সেজন্য সৎ থাকাটা খুব বেশি প্রয়োজন।[/int-ans]
[int-qs]প্রতিদিন ভালো থাকা জরুরি?[/int-qs]
[int-ans]সবদিন তো ভালো থাকা কোনোভাবেই সম্ভব না।[/int-ans]
[int-qs]ভালো আছি-এটা মনে রাখা জরুরি?[/int-qs]
[int-ans]আমার মনে হয় জরুরি। কারণ ভালো থাকাটা সম্পূর্ণ নিজের ওপর নির্ভর করে। নিজের কাছে যদি ভালো না থাকি, বাইরে ভালো থেকে লাভ নাই।[/int-ans]
[int-qs]মন খারাপ হয়?[/int-qs]
[int-ans]অবশ্যই (হাসি)। মন খারাপ হয়, মন ভালো হয়, এটা জীবনের একটা অংশ।[/int-ans]
[int-qs]মন খারাপ হলে কি করেন?[/int-qs]
[int-ans]ডিপেন্ডস। একেজন একেকভাবে মন খারাপটা দূর করার চেষ্টা করেন। আমি মন খারাপ হলে একা থাকতেই পছন্দ করি। তখন মানুষের সঙ্গে মিশতে ভালো লাগে না।[/int-ans]
[int-quote]সৎ থাকাটা খুব জরুরি। যে কাজই করি না কেন, সৎ থাকতে হবে। কারো উপকার করতে না পারলেও অপকার করা যাবে না। কারণ কারো ক্ষতি করলে সেটা ভালো থাকার পথে খুব বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। নিজেকে পোড়ায়। সেজন্য সৎ থাকাটা খুব বেশি প্রয়োজন।[/int-quote]
[int-qs]দুঃখ, কষ্ট, রাগ, হিংসা-এগুলোকে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]
[int-ans]এগুলো প্রাত্যহিক জীবনের স্বাভাবিক একটা অংশ। মন থাকলে রাগ, হিংসা-এগুলো হবেই। তাই স্বাভাবিকভাবেই নেয়ার চেষ্টা করি।[/int-ans]
[int-qs]রাগ হয় না?[/int-qs]
[int-ans]খুব হয়।[/int-ans]
[int-qs]তখন কি করেন?[/int-qs]
[int-ans]আমার একটা দুর্বলতা আছে, রাগ হলে সেটি সামলাতে খুব কষ্ট হয়। নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি। তবে ভালো ব্যাপারটি হলো, রাগটা আসলেই কম হয়। কিন্তু যখন হয়, খুব বেশি হয়। রাগ তো হবেই। রাগ হচ্ছে পার্ট অফ লাইফ।[/int-ans]
[int-img name=”মীর ফরিদ”]https://monerkhabor.com/wp-content/uploads/2015/10/bashar-4.jpg[/int-img]
[int-qs]দৈনন্দিন রুটিনে কোনো হেরফের হলে সেটি মনের ওপর প্রভাব ফেলে?[/int-qs]
[int-ans]ফেলে। সাধারণত রুটিনের বাইরে যেতে চাই না। একান্তই যদি যেতে হয়, যে কাজ করি, সেটি ব্যহত হয়। কিন্তু প্রতিদিনের কাজে খুব একটা প্রভাব ফেলে না।[/int-ans]
[int-qs]হিংসা হয়?[/int-qs]
[int-ans]হয়।[/int-ans]
[int-qs]কাকে বেশি হয়?[/int-qs]
[int-ans]ওভাবে ভেবে দেখিনি। কিন্তু হিংসা হয়, অনেককেই হয় (হাসি)।[/int-ans]
[int-qs]যদি আরেকবার ভালোবাসার সুযোগ পেতেন, কাকে বাসতেন?[/int-qs]
[int-ans]গুড কোশ্চেন (হাসি)! আসলে লাইফে ভালোবাসাবাসি যার সাথে হয়েছে, খুব অল্প বয়সে, তার সঙ্গেই বিয়ে হয়ে গেছে। তাই অন্যদিকে তাকানোর সুযোগ কখনো হয়নি। বাট আমি যাকে ভালোবাসি, তাকে আগে থেকেই ভালোবাসতাম।[/int-ans]
[int-qs]মানসিকভাবে কি কখনো অসুস্থ হয়েছেন?[/int-qs]
[int-ans]অসুস্থ হয়েছি। [/int-ans]
[int-qs]শারীরিকভাবে?[/int-qs]
[int-ans]সে তো হয়েছিই। সবসময়ই হই। যেহেতু স্পোর্টসের সঙ্গে জড়িত আছি, হাত-পা ভাঙতোই। চার-পাঁচবার হাত ভেঙেছে, আঙ্গুল ভেঙেছে।[/int-ans]
[int-qs]মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়কে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]
[int-ans]যেহেতু ক্রিকেট প্লেয়ার ছিলাম, বেশ কিছুদিন আমাকে মানসিক বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কাজ করতে হয়েছে। ক্রিকেট কিন্তু সিক্সটি পার্সেন্ট মেন্টাল গেম। মানসিকভাবে সুস্থ থাকা, মানসিকভাবে ফিট থাকা ক্রিকেট খেলার জন্যে খুব ইম্পর্টেন্ট।[/int-ans]
[int-qs]কখনো মনে হয়েছে মানসিকভাবে অসুস্থ আছেন?[/int-qs]
[int-ans]আমরা আসলে সবাই মানসিকভাবে কম-বেশী অসুস্থ। আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে আর্থ-সামাজিক অবস্থা খুব একটা ভালো না। তাই সবাই কম-বেশি মানসিক অসুস্থতায় ভুগছি। বেশীরভাগ মানুষ দিনের অনেকটা সময় নানা চিন্তা-দুশ্চিন্তা করেন। সেজন্য মানসিক অসুস্থতা আমাদের জন্য স্বাভাবিক হয়ে গেছে।[/int-ans]
[int-img name=”মীর ফরিদ”]https://monerkhabor.com/wp-content/uploads/2015/10/bashar-1.jpg[/int-img]
[int-qs]কোন গোপন কথা থাকলে বলুন, আমরা কাউকে কিচ্ছু বলব না, শুধু ছাপিয়ে দেব।[/int-qs]
[int-ans]গোপন কথা তো কমবেশি সবার জীবনেই থাকে। কিন্তু আমার গোপন কথাটা আমি কারো সঙ্গে শেয়ার করতে পছন্দ করি না। আমার মধ্যে রাখতেই পছন্দ করি।[/int-ans]
[int-qs]স্বপ্ন দেখেন?[/int-qs]
[int-ans]স্বপ্ন দেখি। আমি বিগ ড্রিমার। ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন দেখি এবং মনে করি জীবনে কিছু করতে হলে স্বপ্ন দেখাটা খুবই দরকার। স্বপ্নই মানুষকে পরিশ্রম করতে আসলে সাহায্য করে, কোনো কিছু অর্জন করার যদি ইচ্ছা থাকে, কাজের ক্ষেত্রে সেটা অনেক সাহায্য করে। স্বপ্ন দেখাটা খুব, খুব প্রয়োজন।[/int-ans]
[int-qs]রাতে স্বপ্ন দেখেন?[/int-qs]
[int-ans]ঘুমানোর সময় তো দেখিই।[/int-ans]
[int-qs]কেমন হয় সেগুলো?[/int-qs]
[int-ans]আমার স্বপ্নগুলো একটু অপ্রাসঙ্গিক হয়। মাঝে মাঝে ঘুম থেকে উঠে ভাবি, এমন স্বপ্ন কেন দেখলাম?[/int-ans]
[int-qs]আপনি যেজন্য পরিচিত, সেটি মানুষের মনের ওপর উপরে বেশ প্রভাব ফেলে। এটাকে কিভাবে দেখেন?[/int-qs]
[int-ans]এটাকে আমি আমার একটা অর্জন মনে করি। যে কাজ আমি করি, সেটাকে যদি কেউ ফলো করে, কাউকে খুশি করে; একে আমি নিজের একটি অর্জন হিসেবেই দেখি।[/int-ans]
[int-qs]অন্যরা যাতে আপনার প্রতি খুশি থাকে, অন্য সবাইকে ভালো রাখতে পারেন, সেজন্য কিছু কি করেন?[/int-qs]
[int-ans]নিজের কাজের প্রতি সৎ থাকার চেষ্টা করি। যখন খেলতাম, সবসময় সৎ থাকার চেষ্টা করেছি।[/int-ans]
[int-qs]পেশাগত জীবনে সফল। অন্য পেশায় গেলে সফল হতে পারতেন? সেখানে নিজেকে কোথায় দেখতে চাইতেন?[/int-qs]
[int-ans]খুব ছোটবেলা থেকেই এ পেশায় জড়িয়ে গেছি। তাই অন্য কিছু ভাবার সুযোগ হয়নি। তবে হ্যাঁ, অন্য কোনো পেশায় যদি  যেতাম নিজেকে উপরের দিকেই দেখতে চাইতাম। [/int-ans]
[int-qs]নিজের কাছে মানুষ হিসেবে আপনি কেমন?[/int-qs]
[int-ans]গুড, ব্যাড এন্ড আগলি (হাসি)।[/int-ans]
[int-qs]স্মৃতি কাতরতা আছে?[/int-qs]
[int-ans]আছে।[/int-ans]
[int-qs]তা কতটুকু প্রভাব ফেলে?[/int-qs]
[int-ans]খুব বেশি ফেলে না। আমাদের লাইফটা খুব প্র্যাকটিকাল। স্মৃতি নিয়ে পড়ে থাকলে সারভাইভ করা খুব ডিফিকাল্ট। বাট হ্যাঁ, যখন একা থাকি, কিছু স্মৃতি তো নিজেকে পোড়ায়ই, কিছু ভালো স্মৃতি আছে, যখন একা থাকি, একটু বেশি মনে পড়ে, বাট আমি স্মৃতিকাতরতা নিয়ে বসে থাকি না। লাইফটা খুব প্র্যাকটিক্যাল তো, সারভাইভ করতে হলে প্র্যাকটিকাল হতে হয়। [/int-ans]
[int-qs]আপনার জীবনে মানসিক শক্তির প্রভাব কতটুকু? এ নিয়ে আপনার মূল্যায়ন মনের খবরের পাঠকদের জন্য শেয়ার করবেন প্লিজ?[/int-qs]
[int-ans]মানসিক সুস্থতা ছাড়া কোনো কাজেই সফল হতে পারবেন না। মেন্টালি ফিট থাকলে যে কোনো কাজ করে আনন্দ পাবেন, যে  কোনো কাজে সফল হতে পারবেন। মানুষের জীবনে অনেক সমস্যা থাকে, মানসিক অনেক সমস্যাও থাকে; কিন্তু নিজেকে ঠিক রাখাটা খুব ইম্পর্টেন্ট। এটা না করলে জীবনে সফল হতে পারবেন না। [/int-ans]
[int-qs]নিজেকে নিয়ে কি ভাবেন?[/int-qs]
[int-ans]বিইং এ রেসপেক্টেড পার্সন। মানুষের সম্মান পাওয়া-এটা আমার কাছে খুব ইম্পর্টেন্ট। টু গেট রেসপেক্ট ফ্রম এভরিওয়ান।[/int-ans]
[int-quote]মানসিক সুস্থতা ছাড়া কোনো কাজেই সফল হতে পারবেন না। মেন্টালি ফিট থাকলে যে কোনো কাজ করে আনন্দ পাবেন, যে কোনো কাজে সফল হতে পারবেন। মানুষের জীবনে অনেক সমস্যা থাকে, মানসিক অনেক সমস্যাও থাকে; কিন্তু নিজেকে ঠিক রাখাটা খুব ইম্পর্টেন্ট। এটা না করলে জীবনে সফল হতে পারবেন না।[/int-quote]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here