আপনি Somatic Symptom Disorder নামক এক ধরনের অসুখে ভুগছেন

আপনি Somatic Symptom Disorder নামক এক ধরনের অসুখে ভুগছেন

সমস্যা: 
আমার বয়স ২৬ বছর। আমি দশ মাস থেকে বুকের বিভিন্ন স্থানে ব্যথা, সব সময় বুক ধড়ফড়, কোষ্ঠকাঠিন্য অনিদ্রায় ভুগছি, তাই এখন সব সময় মনের ভিতরে ভয় কাজ করে। কোথাও গিয়ে রাতে থাকতে পারি না। মাথা মাঝে মধ্যে চক্কর দিয়ে ওঠে, সব কিছু ভুলে যাই। কোনো কিছু ভাল লাগে না। দিনদিন আমি একদম গুটিয়ে যাচ্ছি। অনেক সময় কি রকম যেন লাগে, মনে হয় কি যেন হবে। এজন্য অনেক ডাক্তার দেখিয়েছি মেডিসিন ডাক্তার, হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, মানসিক ডাক্তার সহ আরো অনেক ডাক্তার দেখিয়ে কোনো কাজ হয়নি এবং অনেক পরীক্ষা করেছি ETT, ECG, ECO, বুকের এক্স-রে, আলট্রাসনো, রক্তের বিভিন্ন পরীক্ষা কয়েকবার করিয়েছি ডাক্তার বলে কোনো সমস্যা নেই, সব নরমাল। বিভিন্ন প্রকার ঔষধ খেয়েছি যেমন indever 10, esita 5, veracal 40, betafix2.5, U4, Cardizem 30, mitaprex 15, pase.5 সহ বিভিন্ন প্রকার ঔষধ খেয়েছি কিন্তুু আমার সমস্যা সমাধান হচ্ছে না। বতর্মানে আমি একজন হৃদরোগ মেডিসিন অধ্যাপকের চিকিৎসা নিচ্ছি এবং উনি এগুলো ঔষধ খেতে বলেছে veracal 40 1+0+1, pase.5 0+0+1, reversair 10  0+0+1.lubilax 8.1+0+1 কিন্তুু এগুলো খেয়েও কাজ হচ্ছে না  আমি এখন কি করব কোন ডাক্তার দেখালে ভাল হবে প্লিজ জানাবেন স্যার |
বি:দ্র: আমার এজমা আছে, প্রেশান সব সময় 120/80 থাকে, পালস রেট 72. দয়াকরে আমাকে একটা পরামর্শ দিবেন।
পরামর্শ:
আমার কাছে আপনার সমস্যার সমাধান জানতে চাওয়ার জন্য ধন্যবাদ। আপনি Somatic Symptom Disorder নামক এক ধরনের অসুখে ভুগছেন। এটা এমন এক অসুখ যে অসুখে মনের কষ্ট শারীরিক লক্ষণের মাধ্যমে প্রকাশ পাচ্ছে। আর একারণেই প্রচলিত চিকিৎসায় উপকার পাচ্ছেন না। পরীক্ষার মাধ্যমে এই রোগ নির্ণয় করার পদ্ধতি এখনও আমাদের দেশে নেই। তাই অসুখের  লক্ষণের প্রকাশভঙ্গী দেখে এবং Exclusion পদ্ধতিতে (অসুখের লক্ষণ অনুযায়ী পরীক্ষা করে স্বাভাবিক পাওয়া- যেটা আপনি ইতিমধ্যেই সম্পন্ন করেছেন) এই ধরনের অসুখ নির্ণয় করা হয়। কষ্ট শরীরে আর অসুখ মনে। কাজেই মনের চিকিৎসাই একমাত্র চিকিৎসা। চিকিৎসার ভাষায় যাকে বলা হয় সাইকোলজিক্যাল চিকিৎসা। আর এ ধরনের চিকিৎসা নেয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনষ্টিটিউটে, বিষেশায়িত হাসপাতালের মানসিক রোগ বিভাগে বা কোন অভিজ্ঞ মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের সংগে যোগাযোগ করতে হবে।
মনে রাখবেন, চিকিৎসার পরও অসুখের সবগুলো লক্ষণ দূরীভূত নাও হতে পারে। অল্প-স্বল্প কষ্ট নিয়েই জীবনে চলার অভ্যাস করতে হবে। আর পরীক্ষা করার ও শারীরিক লক্ষণ অনুযায়ী বিভিন্ন চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার প্রবণতা অবশ্যই পরিত্যাগ করতে হবে। কারণ আপনার শারীরিক লক্ষণগুলো একটি গাছের ডালপালার মতো একই অসুখের প্রকাশভঙ্গী মাত্র। ভাল থাকুন- এ কামনায় শেষ করছি।
পরামর্শ দিচ্ছেন,
প্রফেসর ডা. মো. নিজাম উদ্দিন


দৃষ্টি আকর্ষণ- মনেরখবর.কম এর প্রশ্ন-উত্তর বিভাগে, মানসিক স্বাস্থ্য, যৌন স্বাস্থ্য, মাদকাসক্তি সহ মন সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে আপনার কোনো জানার থাকলে বা প্রশ্ন থাকলে বা বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দরকার হলে question@www.monerkhabor.com এই ইমেলের মাধ্যমে প্রশ্ন পাঠাতে পারেন।

No posts to display

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here