অনেক সময় স্বামীর রাগ সন্তানের ওপর ঝেড়ে ফেলি

0
33

 

প্রশ্ন: আমার বয়স ৩৬। শিক্ষকতা করি। আমার বিয়ে হয়েছে সাত বছর। একটি বাচ্চা আছে। বাচ্চার বয়স ৪ বছর। আমার স্বামীর সাথে আমার সম্পর্ক সবসময়ই ভালো ছিল। কিন্তু বাচ্চা জন্মের এক বছর পর থেকে একটা দূরত্ব কাজ করতে থাকে। খুব দরকারি কথা ছাড়া কথা হয় না। এমন না যে আমি বলতে চাই না। সে হয়ত আমার কথা গুরুত্ব দিয়ে শুনল না। আবার অনেক সময় এমন কিছু বলল যে, আমার আর কথা বলতে ইচ্ছে করল না। দিনের পর দিন আমাদের মধ্যে বাচ্চা, সংসার আর ভবিষ্যত ছাড়া কোনো রকমের কথাবার্তা হয় না। শারীরিক আকাঙ্ক্ষাও তেমনভাবে কাজ করে না। আগে মাঝে মাঝে বুঝিয়ে বলতাম। কিন্তু এখন বলতে গেলে মনে হয়, সে বুঝতে পারবে না বলে কী লাভ। এর প্রভাব আমার ছেলের ওপরও পড়ে । কখনো কখনো ওর ওপর আক্রোশ ঝেড়ে ফেলি। এই অবস্থা থেকে আমি কীভাবে মুক্তি পাব?
—নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

পরামর্শ দিয়েছেন,
অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুন্নাহার
সাবেক বিভাগীয় প্রধান, মনোরোগবিদ্যা বিভাগ,
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুন্নাহার: প্রথমত আপনার নিজের হতাশা কখনোই বাচ্চার ওপরে পড়তে দেবেন না। বাচ্চাকে মারধোর কিংবা বেশি বকাঝকা করলে বাচ্চার সাথে আপনার দূরত্ব ক্রমশই বাড়তে থাকবে। এবারে আসা যাক আসল কথায়। কেন আপনাদের মাঝে দূরত্ব তৈরি হলো? কেন একে অন্যের সাথে কথাবার্তা বলতে বা শারীরিক সম্পর্কে আগ্রহী নন? এ নিয়ে আপনারা খোলামেলাভাবে আলোচনা করতে পারেন। বৈবাহিক সম্পর্ককে একেবারে নিশ্চিতভাবে ধরে নেওয়াটা ঠিক নয়। বিয়ে হয়ে গেলেই আসবাবপত্রের মতো ‘Taken for granted’ এই অনুভূতি এসে যায় অনেকের মধ্যে। তখন সম্পর্কটা ক্রমশই যান্ত্রিক হয়ে ওঠে। একটা পরামর্শ দেয়া যেতে পারে। আপনাদের ভালো সম্পর্কের দিনগুলো নিয়ে কথা বলুন— কোথায় বসে আড্ডা দিতেন, কোন রেস্টুরেন্টে খেতে যেতেন, ফেসবুক বা এসএমএস করে কি রোমান্টিক ভাবের শেয়ারিং করতেন ইত্যাদি। সপ্তাহে একটা দিন বাচ্চা, সংসার আর ভবিষ্যতের কথা বাদ দিয়ে অন্য বিষয়ে আলাপ করুন (যেমন: রোমান্টিক মুভি দেখা, বেড়াতে যাওয়ার পরিকল্পনা করা) বছরে অন্তত একবার পাহাড়, সমুদ্র অথবা কোনো রিসোর্ট থেকে ঘুরে আসুন। মনে রাখতে হবে যে, বৈবাহিক সম্পর্ককে সযত্নে লালন করতে হয় যেন একঘেয়েমি চলে না আসে। সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে আপনারা দুজনে যদি আগ্রহী থাকেন তবে অবশ্যই সেটা সম্ভব। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ কাউন্সেলরের পরামর্শ নিতে পারেন।

Previous articleআনন্দ আর বিষাদের এক রোগ বাইপোলার ডিসঅর্ডার, সমাধান কী?
Next articleওথেলো সিনড্রোম : সঙ্গীকে নিয়ে অহেতুক ভয় ও সন্দেহ করার একটি মানসিক রোগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here