অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা লক্ষণ, কারণ ও চিকিৎসা

0
49
অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা লক্ষণ, কারণ ও চিকিৎসা
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

প্রত্যেকেরই জীবনের কোন না কোন সময় উদ্বেগে বা দুশ্চিন্তা জনিত সমস্যায় ভুগে থাকে। উদাহরণস্বরূপ- পরীক্ষা, মেডিকেল টেস্ট, চাকরির সাক্ষাৎর নিয়ে উদ্বিগ্ন এবং উদ্বেগ বোধ করতে পারেন।

এ জাতীয় সময়ে উদ্বিগ্ন হওয়া পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে পারে। মাঝে মাঝে উদ্বেগ অনুভব করা জীবনের একটি সাধারণ অংশ। যাই হোক, উদ্বেগজনিত সমস্যায় ব্যক্তি প্রায়শই তীব্র, অতিরিক্ত, অবিরাম উদ্বেগ এবং দৈনন্দিন পরিস্থিতি সম্পর্কে ভয় থাকে।

তবে কিছু লোক তাদের উদ্বেগ বা দুশ্চিন্তা নিয়ন্ত্রণ করতে অসুবিধায় পড়েন। তাদের উদ্বেগের অনুভূতিগুলো প্রায়শই তাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে। উদ্বেগ এবং আতঙ্কের এই অনুভূতিগুলো প্রতিদিনের ক্রিয়াকলাপগুলোতে হস্তক্ষেপ করে, যা নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন এবং দীর্ঘ সময় ধরে থাকতে পারে।

এই অনুভূতিগুলো রোধ করার জন্য আপনি স্থান বা পরিস্থিতি এড়াতে পারেন। এই উদ্বেগ বা দুশ্চিন্তা শৈশব বা টিনএজ বছরগুলোতে লক্ষণ শুরু হতে পারে এবং তারপরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে।

উদ্বেগজনিত কয়েকটি সমস্যা হল:

প্যানিক ডিসঅর্ডার, ফোবিয়া যেমন অ্যাগ্রোফোবিয়া বা ক্লাস্ট্রোফোবিয়া, ট্রমাজনিত পরবর্তী স্ট্রেস ডিসঅর্ডার, সামাজিক উদ্বেগ (সামাজিক ফোবিয়া)। জিএডি একটি দীর্ঘমেয়াদী সমস্যা, যা আপনাকে নির্দিষ্ট ইভেন্টের পরিবর্তে বিস্তৃত পরিস্থিতি এবং ইস্যু সম্পর্কে উদ্বিগ্ন করে।

Generalized Anxiety Disorder (GAD) লোকেরা দিনের বেশিরভাগ সময় উদ্বেগ বোধ করে এবং প্রায়শই অস্বস্তি বোধ করে। একটি উদ্বিগ্ন চিন্তার সমাধানের সাথে সাথেই অন্য একটি পৃথক সমস্যা সম্পর্কে উদ্বিগ্ন হতে পারে।

Symptoms of generalized anxiety disorder (GAD):

১. বিভিন্ন বিষয়, ইভেন্ট বা ক্রিয়াকলাপ সম্পর্কে অতিরিক্ত উদ্বেগ এবং উদ্বেগের উপস্থিতি। উদ্বেগ কমপক্ষে ৬ মাসের চেয়ে বেশি এবং এটি স্পষ্টভাবে অতিরিক্ত।

২. উদ্বেগ নিয়ন্ত্রণ করতে খুব চ্যালেঞ্জ অনুভব করবে বা কঠিন মনে হবে। প্রাপ্তবয়স্ক এবং শিশু উভয়ের মধ্যে উদ্বেগ খুব সহজেই একটি বিষয় থেকে অন্য বিষয়ে চলে যেতে পারে।

৩. উদ্বেগ ও উদ্বেগের সাথে নিম্নলিখিত শারীরিক বা জ্ঞানীয় লক্ষণগুলোর মধ্যে কমপক্ষে তিনটি লক্ষণ উপস্থিত থাকতে হবে (বাচ্চাদের মধ্যে জিএডি নির্ণয়ের জন্য কেবল একটি লক্ষণ প্রয়োজন):

# অস্থিরতা

# সহজেই ক্লান্তি

# একাগ্রতা বা মনোযোগের সমস্যা

# বিরক্তি (যা অন্যের কাছে পর্যবেক্ষণযোগ্য বা নাও হতে পারে)

# মাংশপেশী ব্যথা বা ব্যথা বৃদ্ধি

# ঘুমোতে অসুবিধা (ঘুমিয়ে পড়তে বা ঘুমোতে সমস্যা হওয়া, রাতে অস্থিরতা, বা তৃপ্তিময় ঘুম না হওয়া)।

সাধারণ উদ্বেগজনিত সমস্যার কারণ:

  • আবেগ এবং আচরণের সাথে জড়িত মস্তিষ্কের ক্ষেত্রগুলোর Overactivity।
  • মুড নিয়ন্ত্রণের সাথে জড়িত মস্তিষ্কের রাসায়নিক যেমন সেরোটোনিন এবং নোরড্রেনালিনের ভারসাম্যহীনতা।
  • বংশগত কারণঃ পরিবারের কারো মধ্যে এই সমস্যা থাকলে আপনার হতে পারে।
  • গৃহ সহিংসতা, শিশু নির্যাতন বা হুমকির মতো চাপযুক্ত বা আঘাতজনিত অভিজ্ঞতার ইতিহাস থাকে।
  • দীর্ঘস্থায়ী বেদনাদায়ক অবস্থা বা স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা যেমন বাত।
  • ড্রাগ বা অ্যালকোহলের অপব্যবহারের ইতিহাস রয়েছে। কিন্তু অনেক লোক কোন স্পষ্ট কারণ ছাড়াই এই সমস্যা হতে পারে।

চিকিৎসা:

  • Psychological Therapy: কগনেটিভ বিভেবিয়ার থেরাপি/সাইকোথেরাপি। এই থেরাপি প্রেফেশনাল সাইকোলজিস্টরা (Psychologist) দিয়ে থাকেন।
  • Medicine: Psychiatric drug. Medicine Prescribe করেন একজন psychiatrist.

চিকিৎসার মাধ্যমে অনেক লোক তাদের উদ্বেগের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হন। তবে চিকিৎসা দীর্ঘ সময়ের জন্য চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন হতে পারে এবং তাছাড়া লক্ষণগুলো আরও খারাপ হতে পারে।

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here