স্মৃতিশক্তি ৪র্থ পরিচ্ছেদ: স্মৃতি ভুলে যাওয়ার স্বাভাবিক কারণ

0
32
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

পুরানো স্মৃতি ভুলে যাওয়া ও নতুন নতুন তথ্য আয়ত্ত করা আমাদের প্রতিদিনের খুব স্বাভাবিক ঘটনা। কিন্ত আমরা মেমোরি বা স্মৃতি স্বাভাবিকভাবে ভুলে যাই কেন? ভুলে যা্ওয়াতে কি আমাদের কোনো উপকার হয়? না ভুললে কি কোনো ক্ষতি হতো? এই বিষয় নিয়ে আজ আলোচনা করব। তার আগে একটু জেনে নেই মানুষ স্বাভাবিকভাবে কেন ভুলে যায়।

গবেষণায় দেখা গেছে স্মৃতি ভুলে যাওয়ার প্রধানত চারটি কারণ আছে।

Encoding failure:
আমরা আগে জেনেছি Encoding কাকে বলে। যদি কোনো তথ্য মস্তিষ্কে মেমোরিতে পরিনত করার এই প্রথম ধাপ ঠিকভাবে না হয় তাহলে পরবর্তীতে সেটা ঠিক ভাবে উদ্ধার ও ব্যবহার করা যায় না এবং মেমোরিতে সমস্যা তৈরি হয়। এই প্রক্রিয়াকে স্বাভাবিকভাবে ভুলে যাওয়ার জন্য Encoding failure হিসাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

Decay theory:
মেমোরি Encoding, Organization/ সাজানো ঠিকভাবে হলেও কোনো মেমোরি অনেক দিন ব্যবহার না করলে ক্ষয় হয়ে যায়। অনেকটা লোহায় মরিচা পড়ে ক্ষয় হয়ে যাওয়ার মত। এই প্রক্রিয়াকে স্বাভাবিকভাবে ভুলে যাওয়ার Decay theory হিসাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

Interference theory:
একটা জিনিসের আগে বা পরে আর একটা জিনিস আসলে আগেরটা বা পরেরটা দেখতে অসুবিধা হতে পারে। মেমোরির বেলায়ও এমনটি ঘটে। অনেক সময় নতুন মেমোরির জন্য পুরানো মেমোরিতে অসুবিধা তৈরি করে। আবার অনেক সময় পুরানো মেমোরির জন্য নতুন মেমোরির অসুবিধা হয়। এই প্রক্রিয়াকে স্বাভাবিকভাবে ভুলে যাওয়ার Interference theory হিসাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

Retrieval failure:
Memory Retrieval/ স্মৃতি পুনরুদ্ধারে পদ্ধতিগত কোনো ভুল মেমোরি ভুলে যাওয়ার জন্য অন্যতম কারণ হিসাবে বিদ্যমান। Memory Retrieval/ স্মৃতি পুনরুদ্ধার নিয়ে আগেই আলোচনা করা হয়েছে। মেমোরি Organization/সাজানো, Retrieval cues / স্মৃতি পুনরুদ্ধার সংকেত, Context & Retrieval / ঘটনা ও স্মৃতি পুনরুদ্ধার এ গুলোর সঠিক সমন্বয়ের মাধ্যমে এই কারণ থেকে বাঁচা যেতে পারে।

যদি আমরা ভুলে না যেতাম তাহলে আমাদের প্রতিদিনের জীবন অসহ্য হয়ে যেত। একের পর এক কাজ আমরা সম্পন্ন করতে পারতাম না। তাছাড়া যদি আমাদের সব চেয়ে কষ্টদায়ক স্মৃতি ভুলে না যেতাম, জীবন কি তাহলে আসলেই সম্ভব ছিল?


প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। মনের খবরের সম্পাদকীয় নীতি বা মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই মনের খবরে প্রকাশিত কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না কর্তৃপক্ষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here