ব্যক্তি স্বাধীনতা ও আত্মবিশ্বাস সংস্কৃতিভেদে আলাদা

0
75
সাদিয়া আফরিন
শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।

স্বাধীনতাহীনতায় কে বাঁচিতে চায় হে, কে বাঁচিতে চায় রঙ্গলাল বন্দোপাধ্যায়ের কবিতার এই কথা প্রতিটি ব্যক্তিমানুষের মনের কথা। জাতীয় পর্যায় থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত প্রতিটি ক্ষেত্রে স্বাধীনতা মানবসমাজের একান্ত কাম্য।

পরাধীনতার নাগপাশ থেকে দেশকে মুক্ত করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ২৬ মার্চ স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। নয়মাসের দীর্ঘ মুক্তিযুদ্ধ শেষে আমরা পেয়েছি স্বাধীন বাংলাদেশ। তাই দেশের সব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।

স্বাধীনতা শব্দটি একটা ব্যাপক অর্থ ধারণ করে, আমরা এখানে ব্যক্তি স্বাধীনতা এবং এর সঙ্গে আত্মবিশ্বাসের সম্পর্কের কিয়দংশ নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করব। ব্যক্তি পর্যায়ে স্বাধীনতা প্রতিটি জাতি, সমাজ সংস্কৃতি অনুযায়ী পরিবর্তিত হয়। বিভিন্ন সমাজ বা সংস্কৃতিতে এর প্রকাশ ও প্রয়োগ আলাদা। বয়সভেদেও এই পরিবর্তন লক্ষণীয়।

বিভিন্ন সমাজ সংস্কৃতি বিভিন্ন বিষয়কে গুরুত্ব দেয়। স্বাধীনতা প্রকাশে অন্যকথায় বলতে গেলে কিছু মৌলিক বিষয় বাদে ভিন্ন ভিন্ন সমাজে স্বাধীনতার সংজ্ঞা ভিন্ন। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, কারো কাছে স্বাধীনতা মানে পুরোপুরি নিজস্বতাকে উপভোগ করা, আবার কেউবা নিজের ভালো থাকার জন্য অন্যের ওপর নির্ভর করে।

প্রাচ্য এবং পাশ্চাত্যেও এই ভিন্নতা লক্ষণীয়। আর্থ সামাজিক অবস্থান, শিক্ষার সুযোগ এসব বিষয়ও প্রভাব ফেলে স্বাধীনতার স্বরূপ এবং উপলব্ধির ক্ষেত্রে। তবে, স্বাধীনতার নামে স্বে”ছাচারিতা কিংবা অন্যের জন্য পীড়াদায়ক এমন কিছু কোনো সমাজ সংস্কৃতিই স্বীকৃতি দেয় না।

পরিবার থেকেই এই স্বাধীনতা বোধের চর্চা শুরু হয় যা সমাজ, রাষ্ট্রেও চলমান থাকে একজন মানুষের পরিপূর্ণ বিকাশের জন্য। তবে সবরকম স্বাধীনতা নয় বরং সঠিক এবং পরিমিত স্বাধীনতা বোধ এবং এর চর্চাই পারে সুস্থ স্বাভাবিক সমাজ ও সংস্কৃতি গড়তে।

চারটি দেশের মধ্যে (আমেরিকা, জাপান, রোমানিয়া এবং হাঙ্গেরি) সংস্কৃতিভেদে স্বাধীনতার স্বরূপ এবং এর সঙ্গে আত্মবিশ্বাস ও জীবনের পরিতৃপ্তির সম্পর্ক দেখার জন্য ৭৩৬ জন নাগরিকের মাঝে একটি গবেষণা করা হয়। এ সম্পর্কিত বিগত গবেষণাগুলোতে দেখা গিয়েছে যে, স্বাধীনতা ব্যক্তি মানুষকে আত্মবিশ্বাসী ও জীবনের প্রতি পরিতৃপ্ত করে তোলে এবং সামগ্রিকভাবে সমাজেও এর প্রভাব পরিলক্ষিত হয়।

ঠিক আগের গবেষণাগুলোর মতোই, এই গবেষণার ফলাফলও একই রকম। তবে স্বাধীনতার সঙ্গে আত্মবিশ্বাসের সম্পর্ক রোমানিয়ান এবং জাপানিজদের তুলনায় আমেরিকা এবং হাঙ্গেরীয়দের মধ্যে তুলনামূলক শক্তিশালী।

এজন্য এই গবেষণার আরেকটি ধাপে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে রোমানিয়ার গবেষণার ফলাফল নিরীক্ষা করে দেখা যায়, উন্নত আর্থসামাজিক সূচকের সাথে স্বাধীনতা কিছুটা ভিন্ন দুটো সমাজ ব্যবস্থায়।

রোমানিয়ায় স্বাধীনতার পরিমাপ ছিল আত্মনির্ভরশীল এবং ভঙ্গুর না হওয়া। যুক্তরাষ্ট্রে ছিল একদমই নিজের মতো ইউনিক হওয়া, অন্যদের থেকে আলাদা কিছু। কারণ প্রতিটি ভিন্ন সংস্কৃতিতে ভিন্ন ভিন্ন পরিমাপক বিদ্যমান স্বাধীনতা, আত্মবিশ্বাস এবং জীবনের পরিতৃপ্তিবোধ ইত্যাদি বিষয়ে। সে অনুযায়ী ব্যক্তি যখন তার জীবন পরিচালনা করে তখন সমাজে তার গ্রহণ যোগ্যতা বেড়ে যায় এবং আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে।

২০টি ভিন্ন সমাজ সংস্কৃতির ওপর একটি গবেষণা নির্দেশ করে ব্যক্তিপর্যায়ে ধারণকৃত নীতি, মতামতের চেয়ে সমাজ সংস্কৃতি কর্তৃক নির্ধারিত ন্যায় নীতি, মতামত বা সমাজ যেসব বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দেয় তা ধারণ করার ওপর গড়ে ওঠে আত্মবিশ্বাস।

যেমন-কোনো ব্যক্তির স্বাধীনভাবে তার ব্যক্তি তাড়নায় করা কোনো কাজ যদি সামাজিক সাংস্কৃতিকভাবে গ্রহণযোগ্যতা না পায় কিংবা তার অনুকূলে না হয় তবে তার কর্মস্পৃহা এবং আত্মবিশ্বাস কমে যায়। পক্ষান্তরে অনুকূল কোনো কাজ করে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করলে নিজের প্রতি বিশ্বাস বৃদ্ধি পায় এবং বিকাশে সাহায্য করে।

রোমানিয়ানদের মধ্যে এটাই দেখা গেছে যারা আত্মনির্ভরশীল হয়ে স্বাধীনভাবে প্রকাশ করছে তারা সমাজে অধিক গ্রহনযোগ্যতা পাচ্ছেন এবং জীবনের পরিতৃপ্তিবোধ তাদের মধ্যে বেশি। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ব্যক্তি স্বাতন্ত্র্য বজায় রাখা, পুরোপুরি নিজেকে ইউনিক হিসেবে উপস্থাপন করাই সমাজে স্বাধীনতার পরিমাপক এবং গ্রহণযোগ্য।

সতরাং সমাজ সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ সঠিকভাবে ব্যবহৃত ব্যক্তি স্বাধীনতাই পারে আত্মবিশ্বাস এবং জীবনের প্রতি পরিতৃপ্তি বাড়াতে। অবশ্যই স্বাধীনতা মানে ব্যক্তি মানুষকে তাদের নিজস্বতাকে আবিষ্কার করার প্রবণতা এবং আপন সত্তাকে পরিস্ফুটিত করা। তথাপি সমাজ সংস্কৃতিভেদে এর প্রকাশের বিভিন্নতা লক্ষণীয়। কিন্তু সকল দেশে বা সমাজেই স্বাধীনতা এমন একটি বোধ যা আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলে এবং জীবনের প্রতি পরিতৃপ্তি বোধ সৃষ্টি করে।

 

সাদিয়া আফরিন

রেসিডেন্ট এমডি (চাইল্ড অ্যান্ড অ্যাডোলসেন্ট সাইকিয়াট্রি)

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়।

সূত্র: মনের খবর, মাসিক ম্যাগাজিন

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

more

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here