ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ’ওয়েলনেস ফেস্টিভ্যাল ২০২৪’ অনুষ্ঠিত

0
30

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সামগ্রিক সুস্থতা নিশ্চিত এবং মানসিক স্বাস্থ্যের বিভিন্ন বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এবং ঢাবির ছাত্র নির্দেশনা ও পরামর্শ দপ্তরের যৌথ আয়োজনে ‘ওয়েলনেস ফেস্টিভ্যাল’ অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠার ৭৫ বছর উপলক্ষ্যে বছরব্যাপী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এই ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে এই ফেস্টিভ্যাল-এর উদ্বোধন করেন।

অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আনোয়ার-উল-আলম চৌধুরীর (পারভেজ) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব মোল্লা মোহাম্মাদ আবু কাওছার, টিএসসি ছাত্র নির্দেশনা ও পরামর্শ দান কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. মেহ্জাবীন হক, মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সেলিম হোসাইন প্রমুখ।

উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ‘এ বয়সে আবেগ নিয়ন্ত্রণ করা সহজ হয় না। গ্রাম থেকে আসা শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্ধনহীন হয়ে পড়ে। এখানে তারা নানাভাবে প্রভাবিত হয়। আমরা বলি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুল আছে, ফুলের কাঁটাও আছে। অনেকেই আত্মহননের পথ বেছে নেয়। কেউ কেউ আছে আত্মহত্যার পথে হয়তো যায় না। কিন্তু তাদের পরীক্ষার ফল খারাপ হয়, বছর গ্যাপ হয়, বারবার মানোন্নয়ন পরীক্ষা দেয়। তাদের মানসিক স্বাস্থ্য যদি ভালো থাকে, তাহলে তারা নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা থেকে সহজে উত্তরণ করতে পারবে।’

অধ্যাপক ড. মেহ্জাবীন হক বলেন, ছাত্র নির্দেশনা ও পরামর্শ দান দপ্তর সারাব্যাপীই বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাথে মিলে আমরা ফ্রি কাউন্সিলিং, বিভিন্ন হলগুলোতে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান পরিচালনা করা সহ  বিজনেস ফ্যাকাল্টিতে আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করে থাকি। আমাদের এই কার্যক্রমের উদ্দেশ্য হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতে মানসিকভাবে সবসময় সুস্থ ও সচেতন থাকতে পারে। সর্বোপারি, শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতেই আমাদের এই কার্যক্রম।”

ওইদিন সকাল দশটা থেকে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠান শেষ হয় রাত আটটার দিকে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ঢাকা আহছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের সিনিয়র সাইকোলজিস্ট এবং অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য রাখী গাঙ্গুলী

Previous article‘নিরাপদে ডায়াবেটিস রোগীর রোজা পালন’ নিয়ে মনের খবর টিভির ধারাবাহিক অনুষ্ঠান
Next articleবুলিং ও র‌্যাগিং: তরুণ বয়সী ছেলেমেয়েদের জন্য একটি আতঙ্কের নাম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here