আলঝেইমার্স বা ডিমেনশিয়ার কারণ ও চিকিৎসা

0
70
আলঝেইমার্স বা ডিমেনশিয়ার কারণ ও চিকিৎসা

আলঝেইমার্স মস্তিষ্কের এক ধরনের রোগ। যার ফলে রোগী কিছু মনে রাখতে পারে না।

যুক্তরাজ্যে আনুমানিক সাড়ে ৮ লাখ মানুষ সাধারণত এ ধরনের ডিমেনশিয়া দ্বারা আক্রান্ত। আমাদের দেশেও এ রোগে অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন।

ডিমেনশিয়ার লক্ষণসমূহ:

১. স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া।

২. ১০ মিনিট আগের ঘটনা ভুলে যাওয়া।

৩. রান্না, রেসিপি বা ব্যাংক কার্ডের তথ্য ভুলে যাওয়া।

৪. কথা এবং ভাষার সমস্যা তৈরি হয়।

৫. আমি কোথায়? আমি এখানে কেন? রোগী এরকম কনফিউজড করা প্রশ্ন করে থাকেন।

৬. জায়গা না চেনা।

৭. সহজেই আফসেট কিংবা বিরক্ত হওয়া।

৮. প্রায়ই হতাশা দেখা দেয়া।

৯. দৈনন্দিন কাজে আগ্রহ হারিয়ে ফেলা।

১০. সময় ভুলে যাওয়া।

আলঝেইমার্স এর কারণ:

১. আঘাতজনিত কারণে এই রোগ হয়ে থাকে।

২. মাদকদ্রব্য সেবনের ফলে এ রোগ হয়ে থাকে।

৩. অতিরিক্ত ড্রাগ এডিক্টেড হলেও এ রোগ হয়ে থাকে।

৪. হতাশা বা মানসিক আঘাত জনিত কারণে আলঝেইমারস হয়ে থাকে।

৫. মস্তিষ্কের নিউরোট্রান্সমিটারের গোলোযোগের কারণেও এ রোগ হতে পারে।

চিকিৎসা পদ্ধতি:

১. মেডিকেশন।

২. সাইকোথেরাপি।

৩. সাইকোলজিক্যাল কাউন্সেলিং।

সহায়ক চিকিৎসা সেবা:

১. রুটিনমাফিক চলা।

২. কথা বলার সময় ও কথা শুনার সময় তাড়াহুড়া না করা।

৩. দুশ্চিন্তা বা টেনশন না করা।

৪. ভিটামিন বি কমপ্লেক্স জাতীয় খাবার খাওয়া।

৫. নিয়মিত মর্নিং ওয়াক করা।

৬. নিজের জন্য কোয়ালিটি টাইম বের করা।

৭. ক্রিয়েটিভ কাজ করতে চেষ্টা করা।

পরিশেষে বলব, যে কোন মনোরোগ হলে লজ্জ্বা না পেয়ে, ভয় না পেয়ে, সংকোচ না করে, অবহেলা না করে, দ্রুত মনো-চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয়ে চিকিৎসা সেবা নিলে উক্ত রোগ থেকে দ্রুত রিলিফ পাওয়া যায়।

মোঃ রিয়াজুল হক

মনোবিজ্ঞানী ও মনোবৈজ্ঞানিক কাউন্সেলর

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

শেয়ার করুন, সাথে থাকুন। সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে।
       
 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here