বিয়ে মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী

বিবাহের  মাধ্যমে নারী-পুরুষ পরিবার গঠন করে, ঘর সংসার করে। বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া নারী পুরুষ উভয়ের জন্যই ইতিবাচক এবং মানসিক রোগ হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে।
অপরদিকে সংসার ভেঙ্গে গেলে কিংবা বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটলে নারী পুরুষ উভয়েই বিভিন্ন মানসিক রোগ যেমন, হতাশা, উদ্বিগ্নতাসহ মাদক সেবনজনিত সমস্যায় ভুগতে পারেন।
সম্প্রতি সাইকোলজিক্যাল মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। নিউজিল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব ওটাগো’র ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট ড. কেট স্কট উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর ওপর গবেষণাটি করেন।
তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশে জরিপ করে দেখা গেছে, বিবাহ বিচ্ছেদ হলে তারা শুধু হতাশায় ভোগেন না বরং উদ্বিগ্নতা, মাদক সেবনজনিত রোগেও (substance use disorders) ভোগেন। বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলে এবং দাম্পত্য জীবনে সুখের হলে পুরুষদের মধ্যে মাদকদ্রব্য সেবন জনিত সমস্যা কমে যায়।
গবেষণায় বলা হয়,  প্রথম বিবাহে বিচ্ছেদ হলে পুরুষ নারীর তুলনায় কম হতাশ হন। এর কারণ হতে পারে পুরুষ শাষিত সমাজ ব্যবস্থা। তবে নারীরা যদি শিক্ষিত হয়ে পুরুষের তুলনায় ভালো উপার্জন করে তাহলে বিপরীতটা ঘটতে পারে অর্থাৎ নারীরা কম হতাশ হতে পারেন।
নারী-পুরুষ উভয়ের জন্যই বৈবাহিক সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা সমান গুরুত্বপূর্ণ। সচরাচর দাবি করা হয়, মানসিক সুস্থতার জন্য পুরুষের বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া নারীর তুলনায় বেশি ফলপ্রসূ। বাস্তবে বিবাহের মাধ্যমে নারী-পুরুষ উভয়েই সুখী জীবনযাপন করতে পারেন।
গবেষণায় দেখা যায়, বিবাহ বিচ্ছেদ হলে নারী-পুরুষ উভয়েই মানসিক সমস্যায় ভুগতে পারেন। আর বিয়ের সম্পর্ক ভালো হলে নারী পুরুষ উভয়েই মানসিক রোগ এড়িয়ে যেতে পারেন।
আন্তর্জাতিক ডেস্ক, মনের খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here