বিএসএমএমইউতে পালিত হলো বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস

0
30

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) পালন করলো বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস-২০১৮। বিএসএমএমইউ এর শহীদ ডা. মিলন হলে বুধবার সকালে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের আনুষ্ঠনিক উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।
উদ্বোধনী বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, এখন যৌবন যার মিছিলে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়। কিন্তু বর্তমানে তরুণরা স্মার্টফোনের বেড়াজালে আটকা। আমি লক্ষ্য করেছি এখন অনেকে ট্রেনে বা বাসে যাতায়াতে সময় পাশের মানুষটির দিকে তাকায় না, কথাও বলে না। তারা শুধু স্মার্টফোনের দিকে তাকিয়ে থাকে। কিন্তু একটা সময় ছিলো যখন আমরা পাশের সিটের মানুষটির খোঁজ নিতাম।
তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ সময় স্মার্টফোন ব্যবহার করলে মানুষ বিষণ্নতায় ভোগে। আর এটিই তরুণদের গ্রাস করেছে। এজন্য বাবা-মা কে সচেতন থাকতে হবে। তরুণদের মাঠে খেলাধূলা করার ব্যবস্থা করে দিতে হবে। কারণ, তরুণরা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হলে দেশ ও জাতির উন্নতি হবে। আর এই সুস্বাস্থ্যের একটি অংশ হচ্ছে মানসিক স্বাস্থ্য।
বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে ছিলেন বিএসএমএমইউ এর মনোরোগবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব। এছাড়াও অনষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, অধ্যাপক ডা. শাহানা আকতার রহমান, অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম এবং ডা. এম এস আই মল্লিক।
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব বলেন, মূলত তরুণরাই পারে সবকিছু করতে। তার প্রমাণ আজকের এই অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানের জন্য আমার বিভাগের তরুণ রেসিডেন্টরা ৮/৯ দিন টানা পরিশ্রম করে অনুষ্ঠানটিকে সফল করেছে। আমি তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।
তিনি আরো বলেন, বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসে আজকের প্রতিপাদ্য ‘পরিবর্তনশীল বিশ্বে তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য’।  বর্তমানে অনেক সাইটে তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি নিয়ে বিভিন্ন পার্সেন্টেজ দেওয়া আছে। মূলত তরুণরাই মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় বেশি ভোগে। তাদের যদি শুরু থেকেই যত্ন নেওয়া যায় তবে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি ছোট নাটিকা মঞ্চস্থ করে দেখায় প্রাচ্যনাট। এরপরই মনোরোগবিদ্যা বিভাগ আয়োজিত বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে কুইজ প্রতিযোগীতায় বিজয়ী  ডা. মোছাম্মত হাসনা হেনা নার্গিস, ডা. আহসানুল হক ও ডা. ফয়সাল আহমেদের হাতে যথাক্রমে একটি ল্যাপটপ, একটি ট্যাব ও একটি স্মার্টফোন তুুুুলে দেন উপাচার্য।
অনুষ্ঠানের পরবর্তী অংশের তারণ্যের জয়গান শোনান বাংলাদেশ হুইলচেয়ার ক্রিকেট দলের সহ অধিনায়ক নূর নাহিয়ান, গ্লোবাল ম্যাথমেটিকস ট্যালেন্ট প্রোব ২০১৭ এর গোল্ড মেডেলিস্ট অরিজিৎ সেন দীপ্ত, বিএসএমএমইউ এর মেডিসিন অনুষদে সকল বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ নাম্বারধারী প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক জয়ী  ডা. নাফিয়া ফারহানা চৌধুরী এবং প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক ও রাষ্ট্রপতি স্বর্ণপদক জয়ী ডা. হোসনে আরা।
এছাড়াও বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে দুটি বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডা. মো. জার্ডি আলম ও ডা. সুমাইয়া নওশীন আহমেদ। এসময় প্যানেল এক্সপার্ট হিসেবে থেকে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুনাহার, অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. আজিজুল ইসলাম, ডা. এম এস আই মল্লিক এবং ডা. নাহিদ মেহজাবিন।
অনুষ্ঠান শেষে তরুণ প্রতিনিধি হিসেবে নূর নাহিয়ান, অরিজিৎ সেন দীপ্ত, ডা. নাফিয়া ফারহানা চৌধুরী ও ডা. হোসনে আরা’র হাতে ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়। এছাড়াও ডা. মো. জার্ডি আলম ও ডা. সুমাইয়া নওশীন আহমেদকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগ এবং  আয়োজনে সহযোগীতা করেছে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here