মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু

Home সংবাদ জাতীয় অ্যাম্বুলেন্স নেই জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের

অ্যাম্বুলেন্স নেই জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের

২০০১ সালে যাত্রা শুরুর পর মানসিক স্বাস্থ্য সেবা দেয়ার পাশাপাশি মনোচিকিৎসায় দক্ষ জনবল তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল (এনআইএমএইচ)।

২শ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি এ প্রতিষ্ঠানে অন্তঃবিভাগে রোগী ভর্তি ছাড়াও বহিঃবিভাগের মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়া হয়।

তবে নিজস্ব কোনো অ্যাম্বুলেন্স নেই জাতীয় এ প্রতিষ্ঠানের। এনএইএমএইচ সূত্র জানা গেছে এ তথ্য। প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস না থাকার কারণে রোগীদের অনেক সময় দুভোর্গ পোহাতে হয়।

অ্যাম্বুলেন্স না থাকার সত্যতা স্বীকার করেছেন এনআইএমএইচ পরিচালক অধ্যাপক ডা. ওয়াজিউল আলম চৌধুরী। মনের খবরকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তাদের বাজেট সংকট রয়েছে।

তবে জাতীয় প্রতিষ্ঠানটিতে স্বল্প খরচে মানসম্মত সেবা ও মনোরোগের ওপর শিক্ষা পাওয়া যায় বলে জানান ডা. ওয়াজিউল আলম চৌধুরী।

এনআইএমএইচ-এর সেবা ও সুবিধা

অন্তঃবিভাগ:
ইনস্টিটিউটটি ২০০ শয্যা বিশিষ্ট। এরমধ্যে ৪টি কেবিনে ৮টি শয্যা রয়েছে। মহিলা ও পুরুষের জন্য আলাদা ওয়ার্ড সুবিধা রয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি ফি মাত্র ১৫টাকা।

পথ্য সুবিধাসহ প্রতিদিনের কেবিন ভাড়া ৪২৫টাকা। অন্যদিকে, ওয়ার্ডের ক্ষেত্রে দিনপ্রতি ২৭৫ টাকা। পেয়িং/ কেবিন বিছানায় ভর্তির সময় ১০ দিনের চার্জ অগ্রিম দিতে হবে। ১০ দিন পর পরবর্তী অবস্থানের জন্য নিয়মিত ১০ দিন অন্তর অন্তর ভাড়া পরিশোধ করতে হবে।

বহিঃবিভাগ:
প্রতিদিন ১টি শিফটে চলে বহিঃবিভাগে চিকিৎসা সুবিধা। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে চলে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত। বহিঃবিভাগের ফি ১০টাকা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, প্রতিদিন গড়ে বহিঃবিভাগে দেড়শ রোগী আসেন। রোগীদের জন্য বিনামূল্যে ওষুধের সুবিধা রয়েছে হাসপাতালটিতে।

চিকিৎসক ও নার্স:
হাসপাতালটিতে রয়েছেন ৪৪ জন ডাক্তার। আর নার্স রয়েছেন ৪২ জন।

শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা:
চিকিৎসা সুবিধার পাশাপাশি হাসপাতালটি মনোচিকিৎসায় দক্ষ জনবল তৈরিতেও কাজ করে যাচ্ছে। এখানে স্নাতকোত্তর পর্বের এমডি সাইকিয়াট্রিক কোর্স চালু রয়েছে। প্রতিবছর মাত্র ৬জন ভর্তির সুযোগ পান এখানে। একই সঙ্গে দেশের বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানে মানসিক রোগীদের সেবাদানকারী ডাক্তার ও নার্সদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয় এই ইনস্টিটিউটে। পাশাপাশি গবেষণা কার্যক্রমও পরিচালনা করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

টেস্ট সুবিধা:
এখানে প্যাথলজি, রেডিওলজি, আলটাসনোগ্রাম, সিটিস্ক্যান, ইসিটি পরীক্ষা সুবিধা রয়েছে। তবে, এমআরআই ও এক্সরে সুবিধা বর্তমানে অকার্যকর রয়েছে।

শিশু ও বৃদ্ধদের জন্য আলাদা কেন্দ্র:
শিশু ও বৃদ্ধদের রয়েছে বিশেষ সুবিধা। শিশুদের জন্য বিশেষায়িত কেন্দ্রটি খোলা থাকে সপ্তাহের সোমবার ও বুধবার।

ভবন:
হাসপাতালটিতে ৩টি ভবন রয়েছে। এরমধ্যে ২টি দুতলা ভবন এবং একটি চারতলা ভবন।

যোগাযোগের ঠিকানা:
জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, শের-ই-বাংলা নগর, ঢাকা-১২১৭। মুঠোফোন: ০১৭-১১-০২৭৭০৫ টেলিফোন: ৯১১-৮১৭১

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে: সায়মা ওয়াজেদ

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যাডভাইজরি কমিটি অব অটিজম অ্যান্ড নিউরো ডেভেলপমেন্ট ডিজ অর্ডারের...

একাকীত্ব কাটাতে যা করতে পারেন!

মানুষ সামাজিক জীব। একাকীত্ব কোনো মানুষেরই পছন্দ না। তবু কেউ কেউ জীবনে কখনও কখনও ভীষণ একাকীত্বে ভুগে থাকেন। বিশেষজ্ঞদের মতে একাকীত্ব থেকে হতে পারা...

সামাজিক দূরত্বে মানসিক বিড়ম্বনা এবং করণীয়

কোভিড-১৯ মহামারীর এই দুঃসময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে আমরা সবাই বিভিন্ন মানসিক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি। আমরা যেন এটা ভুলেই গেছি যে, সামাজিক দূরত্ব...

কোভিড ১৯ প্রেক্ষিতে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা অত্যন্ত জরুরি: রোকসানা আক্তার

কোভিড-১৯ এর প্রভাবে বিরাট পরিবর্তন এসেছে আমাদের জীবনযাত্রায়। পরিবর্তন এসেছে আমাদের দৈনন্দিন রুটিনে। এই পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে কেমন কাটছে সাধারন মানুষের জীবনযাপন, কি...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন