মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু ENGLISH

Home মানসিক স্বাস্থ্য ডিমেনশিয়া: ভুলে যাওয়া রোগ

ডিমেনশিয়া: ভুলে যাওয়া রোগ

ডিমেনশিয়া এক ধরনের ভুলে যাওয়া রোগ। এ রোগে মানসিক সক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়। অনেক সময় ডিমেনশিয়া এত তীব্র আকার ধারণ করে যে রোগী তার স্বাভাবিক জীবন-যাপনে ব্যর্থ হয়। ডিমেনশিয়া সাধারণত ষাট বছর বয়সে বা এরপর হয়। ক্ষেত্রবিশেষে ৩০, ৪০ বা ৫০ বছর বয়সেও হতে পারে। সঠিক সময়ে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা শুরু করলে ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির জীবন-যাত্রায় সঠিক পরিবর্তন আনা সম্ভব।
ডিমেনশিয়ার কারণ সমূহ:
-ব্রেইন কোষের মৃত্যু
-স্ট্রোক
-ব্রেইন ক্যান্সার
এছাড়াও ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, থাইরয়েড সমস্যা, ভিটামিনের ঘাটতি এবং বিষণ্ণতার কারণেও ডিমেনশিয়া হতে পারে যা চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণরূপে নিরাময় সম্ভব।
যাদের ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার  ‍ঝুঁকি রয়েছে :
-বয়স ৬০ বছর বা এর বেশি
-ডায়বেটিস আক্রান্ত ব্যক্তি
-উচ্চ রক্তচাপ বা কোলেস্টরল রয়েছে যাদের
-স্ট্রোক হয়েছে যাদের
-ব্রেইন ইনজুরি, ইনফেকশন বা ক্যান্সার আক্রান্ত হলে
-হার্টে সমস্যা আছে যাদের
-ধূমপায়ী ব্যক্তি
-নিয়মিত শরীরচর্চা থেকে বিরত থাকা ব্যক্তি
ডিমেনশিয়ার লক্ষণসমূহ :
-পরিচিতজনকে চিনতে না পারা
-কোনো কাজ করে ভুলে যাওয়া
-কথা বলতে বা বঝতে সমস্যা হওয়া
-কথা বলার সময় সঠিক শব্দ খুঁজে না পাওয়া
-ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন হওয়া
-মনোযোগ দিয়ে কোনো কাজ করতে না পারা
-এক কথা বা এক কাজ বারবার করা
-আবেগের পরিবর্তন হওয়া
-সামাজিক যোগাযোগে ব্যর্থ হওয়া
-চিন্তাশক্তি দূর্বল হয়ে যাওয়া
-কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজে সিদ্ধান্ত দিতে ব্যর্থ হওয়া
ডিমেনশিয়া তীব্র আকার ধারণ করলে নিম্নলিখিত মানসিক ও আচরণগত সমস্যা দেখা দেয়:
-বিষণ্ণতা
-অহেতুক সন্দেহ করা
-সবসময় মনে করা যে, আশেপাশের মানুষ তাকে নিয়ে কথা বলছে
-অস্থিরতা
-হঠাৎ রেগে যাওয়া
-কাউকে কিছু না বলে বাইরে চলে যাওয়া
-ক্ষুধা কমে যাওয়া বা বেড়ে যাওয়া
-ঘুম কমে যাওয়া বা বেড়ে যাওয়া
-পরিচর্যাকারীকে যত্ন নিতে বাধা দেয়া
কীভাবে এ রোগের ঝুঁকি কমানো যায় :
-নিয়মিত ব্যায়াম ও সুষমখাদ্য গ্রহণ করলে ধূমপান বন্ধ রাখলে
-ডায়বেটিস, ব্লাড প্রেসার এবং কোলেস্টরল নির্দিষ্ট মাত্রায় রাখলে
কখন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হবেন :
-কোনো কাজ করে অল্প সময়ের ব্যবধানে ভুলে যাওয়া আরম্ভ করলে
-পরিচিতজনকে চিনতে বা জানা কাজ করতে ব্যর্থ হলে
পরিচর্যাকারীর করণীয় :
-ডিমেনশিয়া রোগ ও এর পরিণতি সম্পর্কে বুঝতে চেষ্টা করা
-রোগের লক্ষণ দেখা দিলে মানসিক রোগ বিভাগে যোগাযোগ করা
-ডাক্তারের পরামর্শমতো ঔষধ খাওয়ানো
-রোগীকে আশ্বাস দেয়া
-রোগীর সামনে সবসময় নিজেকে ভালোভাবে উপস্থাপন করা এবং নিজের পরিচয় রোগীর সামনে দেয়া
-সর্বক্ষণ কেউ একজন রোগীর পাশে থাকা
-পুরাতন স্মৃতি মনে করিয়ে দেয়া
-জটিল প্রশ্ন না করা
-সহজ প্রশ্ন করা যার উত্তর হ্যাঁ অথবা না-তে দেয়া সম্ভব
-রোগীকে নির্দিষ্ট সময় পর পর একই জায়গায় খাবার খাওয়ানো
-নির্দিষ্ট সময় পর পর বাথরুমে নিয়ে যাওয়া নিয়মিত শাকসব্জি খাওয়ানো ও পানি পান করানো
-রোগীকে দিন ও রাতের পার্থক্য বুঝতে সহায়তা করা
-রোগীকে তার চেনা জায়গা থেকে না সরানো ধারালো জিনিসপত্র সরিয়ে রাখা
-বাথরুম ও বাইরে যাওয়ার দরজায় নির্দিষ্ট চিহ্ন দিয়ে রাখা
-রোগীর নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর লেখা একটি কাগজ রোগীর সাথে সবসময় রাখা
-রোগীর দায়িত্ব নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেয়া যাতে একজন পরিচর্যাকারীর খুব বেশি কষ্ট না হয়।
অনেক সময় অবহেলার কারণে এ রোগ লোকচক্ষুর আড়ালে থেকে যায় যা পরবর্তীতে রোগী ও তার পরিবারের জন্য অনেক কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। সঠিক সময় রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত রোগীর জন্য অত্যন্ত জরুরি। চিকিৎসকের পরামর্শমতো চললে ও ঠিকমতো পরিচর্যা করলে ডিমেনশিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির জীবনযাত্রার মানে অনেকখানি পরিবর্তন আনা সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

নারী নির্যাতন ও মানসিক স্বাস্থ্য

নারী নির্যাতন বলতে আমরা বুঝি – ব্যক্তিগত এবং সামাজিক দুই ক্ষেত্রেই যে কোনো ধরনের লিঙ্গ নির্ভর নির্যাতন যা কিনা নারীদের শারীরিক, যৌনভিত্তিক এবং মানসিক...

মানসিক প্রফুল্লতায় ‘জুম্বা’

প্রবাদ আছে ‘স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল’। বাস্তবেও শরীরের সাথে মনের সম্পর্ক অনস্বীকার্য। ব্যায়ামের সাথে মানসিক স্বাস্থ্যের সম্পর্কও যে ব্যাপক তা গবেষণা দ্বারাই প্রমাণিত। ম্যাচুরিটাস সাময়িকীতে...

ইতিবাচক মানসিকতা অর্জনের সহায়ক কৌশল

আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন কেন কিছু মানুষ যাই ঘটুকনা কেন সবসময় মূলত ভালো থাকেন? জীবন তাদের ওপর যত বাধা-বিপত্তিই ঠেলে দিক না কেন...

আসুন, মানসিক আঘাতপ্রাপ্ত মানুষের পাশে দাঁড়াই

আমাদের সমাজে অনেকেই আছেন যারা অনেক সঙ্কটাপন্ন মানসিক অবস্থাকে মোকাবেলা করে নিজে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন এবং অন্যদেরকেও অনুপ্রাণিত  করেছেন। সম্প্রতি মিশিগান ব্রেইন ইঞ্জুরি কনফারেন্সের একটি সভায়...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন