সিদ্ধান্তহীনতার নানা বিড়ম্বনা এবং সমাধানে কিছু কৌশল

0
221
সিদ্ধান্তহীনতা

অনেকের মাঝেই সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারার সমস্যা অনেক প্রকট মাত্রায় দেখতে পাওয়া যায়। এই সমস্যার কারণে মানুষকে পদে পদে বিড়ম্বনার সম্মুখীন হতে হয়। এই সমস্যা দূর করতে এর মূলে থাকা কারণ গুলো চিহ্নিত করার পাশাপাশি কিছু কৌশল ও অবলম্বন করা যেতে পারে।

সিদ্ধান্তহীনতা শুধু যে মানুষ বড় কোন সিদ্ধান্ত গ্রহনের সময় অনুভব করে তা নয়। বরং প্রাত্যহিক জীবনের ছোট খাটো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতেও তারা অসফলতার পরিচয় দেয়। প্রয়োজনীয় মুহূর্তে সিদ্ধান্ত গ্রহণ জীবনে সামনে এগিয়ে যাবার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ছোট হোক বা বড়, যে কোন প্রয়োজনে উচিৎ বা অনুচিতকে বেছে নেওয়া, কিংবা নিজের জন্য ভালোমন্দের তফাৎ করে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া, এগুলোর উপরই আমাদের জীবন চলার পথে সফলতা নির্ভর করে। ভাল-মন্দ বেছে নেওয়ার সক্ষমতার অভাব যখন একজন মানুষকে পদে পদে বিপর্যস্ত করে তখন তার মন অত্যন্ত সংকীর্ণ  হয়ে যায় এবং আত্মবিশ্বাস ও শূন্যের কোঠায় নেমে যায়। তার মনে হয় সে যেন এক জেলখানায় বন্দী যেখানে প্রতিটি পদক্ষেপেই রয়েছে ভয় এবং অপারগতা। এই পরাধীনতা এবং সিদ্ধান্তহীনতা প্রতিটি মানুষের জন্যই যেন অভিশাপের  সমান যা থেকে সবাইই মুক্তি পেতে চায়। এভাবে, দ্বিধাহীন হয়ে নিজের সিদ্ধান্ত নিয়ে আত্মনির্ভর হতে কিছু কিছু ক্ষেত্রে যেমন দূর করতে হবে কিছু মূল সমস্যা তেমনি অবলম্বন করতে হবে কিছু নতুন কৌশল।

এটা মনে রাখতে হবে যে আধুনিক জীবনে  আমাদের সবার কাছেই বেছে নেবার মতো সুযোগ বা পছন্দের বিকল্প অনেক বেশী রয়েছে। তাই অপেক্ষাকৃত বেশী সংখ্যক বিকল্প গুলোর মধ্য থেকে সঠিক পছন্দটি বেছে নেওয়া সত্যিই বেশ মুশকিল। তারপরেও, মানুষ চায় যেন সহজভাবে আমরা সঠিক সিদ্ধান্তটি নিতে পারি দ্বিধাহীন ভাবে। এক্ষেত্রে ইচ্ছা এবং বাস্তবতার মাঝে যে তফাৎ টি রয়েছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমাদের সেটি মেনে নেবার মতো মানসিকতা তৈরি করতে হবে। কারণ আমরা কেউই যন্ত্র নই যেসব পরিস্থিতিতে আমরা সব সময়ই সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারবো বা এটা খুব সহজ হবে। এক্ষেত্রে উদ্ভুত সমস্যা এবং তার ভোগান্তি গুলিকে প্রথমত আমাদের মেনে নিতে হবে।

সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হল নিজের সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা রাখা এবং আত্মবিশ্বাসের সাথে সব কিছু সামলে নেওয়ার মানসিকতা ধারণ করা। হতে পারে যে সিদ্ধান্তটি আপনি নিচ্ছেন সেটি পরবর্তীতে ভুল প্রমাণিত হল বা আশানরুপ ফল দিতে ব্যর্থ হল। কিন্তু এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হল আপনি নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নিতে পেরেছেন। সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগার মূল কারণ হতে পারে পরিনামের এই ভয় যা আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে নিরুৎসাহিত করে। এই ভয়কে যদি আপনি মোকাবেলা করতে পারেন এবং আত্মবিশ্বাসের সাথে অতিরিক্ত না ভেবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন তাহলে সিদ্ধান্তহীনতার মতো এই মানসিক সমস্যাটি ধীরে ধীরে কমে আসবে।

সব সময় মনে রাখবেন, একজন মানুষের পক্ষে কখনোই শতভাগ সফলভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়। ভুল হবেই এবং এই ভুল ভ্রান্তি গুলিকে সাথে নিয়ে, মেনে নিয়েই আমাদেরকে সামনে এগোতে হবে। সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ভয় পেয়ে পিছিয়ে গেলে বা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগে মানসিক বিপর্যয় ডেকে আনলে চলবে না। নিজের অসম্পূর্ণতাকে মেনে নিয়ে সেগুলির প্রতি ইতিবাচক হলেই সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগার মতো সমস্যাগুলি দূর হয়ে যাবে। এবং আপনি হতে পারবেন আরও আত্মবিশ্বাসী এবং স্বাধীন।

সূত্র: https://www.psychologytoday.com/intl/blog/the-mindful-path-self-acceptance/202103/indecisiveness-getting-free-the-prison-indecision

অনুবাদ: প্রত্যাশা বিশ্বাস প্রজ্ঞা

করোনায় স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here