মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু ENGLISH

Home মানসিক স্বাস্থ্য ও মানসিক রোগের চিকিৎসা

মানসিক স্বাস্থ্য ও মানসিক রোগের চিকিৎসা

সবার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য প্রতিপাদ্যে এবছর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত হয়েছে। প্রতিপাদ্যে সবার জন্য মানসিক স্বাস্থ্যের কথা বলা হয়েছে; মানসিক রোগের কথা বলা হয়নি।

মানসিক সুস্থতা বলতে আমরা ব্যক্তির এমন একটা অবস্থা বুঝি যেখানে ব্যক্তি তার ব্যক্তিগত সম্ভাবনা অনুভব করতে পারেন, দৈনন্দিন জীবনে সাধারণ যেসব চাপ আছে সেসবের সাথে মানিয়ে নিতে পারেন, কর্মক্ষেত্রে অর্থবহ ভাবে উৎপাদনশীল থাকতে পারে এবং তিনি তার বসবাসরত সমাজে কোন অবদান রাখতে পারেন। এই প্রত্যেকটা শর্ত পূরণ করা মানেই হল ব্যক্তির মানসিক স্বাস্থ্যের নিশ্চয়তা।

আমরা যখন মেন্টাল হেলথ ফর অল বা সবার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য বলবো তখন একটু বিস্তৃত অর্থে দেখতে হবে। কেননা মানসিক স্বাস্থ্য মানে মানসিক রোগে আক্রান্ত থাকা নয়। আর সবার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে হলে মানসিক স্বাস্থ্যখাতে বিনিয়োগ বাড়ানোর বিকল্প নেই। একটি দেশের স্বাস্থ্য বাজেটের ৩% মানসিক স্বাস্থ্যে ব্যয় করার কথা বলা হয়ে থাকে। কিন্তু উন্নত অনেক দেশেই স্বাস্থ্য বাজেটের ৫% মানসিক স্বাস্থ্য খাতে ব্যয় করা হয়।

জরিপে দেখা গেছে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার কারণে বিশ্বে প্রতিবছর ১ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষতি হয় এবং ২০১০ সাল থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত সময়ে মানসিক স্বাস্থ্য জনিত কারণে প্রায় ১৬ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া ২০৩০ সালে আমরা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কথা বলছি। আমাদের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের কোনো বিকল্প নেই।

পৃথিবীতে মানসিক রোগে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা প্রাপ্তির পরিসংখ্যানও খুব সন্তোষজনক নয়। ২০০১ সালের হিসাব অনুযায়ী বিশ্বে ৪৫০ মিলিয়ন মানুষ মানসিক রোগে আক্রান্ত। ২০২০ সালে করোনা প্রেক্ষাপটে সেই সংখ্যা বহুগুণে বেড়েছে। ‍উন্নত বিশ্বে মানসিক রোগে আক্রান্তদের ৫০% চিকিৎসা সেবা পেয়ে থাকেন, অর্থাৎ আক্রান্তদের প্রায় অর্ধেকই চিকিৎসা বঞ্চিত। বাংলাদশে এই পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ।

সর্বশেষ মানসিক স্বাস্থ্য জরিপে দেখা গেছে আমাদের দেশে প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে মানসিক রোগের হার ১৬.৮% এবং শিশু কিশোরদের মধ্যে এ হার ১৩.৬%। এর বিপরীতে আক্রান্তদের মাত্র ৮% প্রাপ্তবয়স্ক এবং ৬% কিশোর মানসিক স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করে থাকেন।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একজন মানুষ মানসিক রোগে আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসা সেবা পেতে অনেকগুলি বাধা আসে। যার মধ্যে প্রথম বাধা হল স্টিগমা অর্থাৎ মানসিক রোগ সংক্রান্ত ভ্রান্ত ধারণা ও কুসংস্কার। এরপর দেশের আইন, ব্যক্তির ক্রয়ক্ষমতা, সেবার সহজলভ্যতার ঘাটতি সহ বেশকিছু বাধা রয়েছে। এইসব বাধা দূরকরণে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন মানসিক স্বাস্থ্য খাতে বিনিয়োগ বাড়ানো।

** মনের খবর টিভিতে প্রচারিত বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের একটি র্ভাচুয়াল আলোচনায় মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. রাহেনুল ইসলাম এর প্রবন্ধ অবলম্বনে।

স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

আমার স্বপ্নদোষ অনেক কম হয়

সমস্যা: আমার বয়স ১৮ বছর। আমি কখনো হস্তমৈথুন করিনি।আমার বন্ধুদের কাছে শুনেছি যে ওরা প্রায় সবাই এটা করে। আমিও চেষ্টা করেছি।কিন্তু সুবিধা করতে পারিনি।...

মাদকাসক্তি প্রতিরোধে পরিবারের ভূমিকা

মাদকাসক্তি একটি রোগ। আরো স্পষ্ট করে বললে মাদকাসক্তি একটি মানসিক রোগ বা মস্তিষ্কের রোগ। মাদক সেবন করলে কি ছুসংখ্যক লোক মাদকাসক্ত হয় (আনু. ১০%)।...

বিষণ্ণতা বলতে আপনি যা ভাবছেন সেটা কি আদৌ সঠিক?

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বিষণ্ণতা বিষয়ে সার্বজনীন যে ধারণা প্রচলিত আছে সেটি সঠিক নয়। বিষণ্ণতা শুধু মন খারাপ বা অসুখী জীবনযাপন নয়; বরং আরও বিষদ কিছু। বিশেষজ্ঞদের...

মন খারাপ হলে কি করবেন?

সব পরিস্থিতি আপনার অনুকূলে থাকবে এমনটা আশা করা কখনোই বুদ্ধিমানের কাজ নয়। কিন্তু এমন মন খারাপ করা প্রতিকূল পরিবেশে, যখন আপনার আবেগ আপনার নিয়ন্ত্রণের...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন