মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু ENGLISH

Home মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে

মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে

সাধারণ মানুষের কাছে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা পোঁছাতে স্টিগমা সবচেযে বড় বাধা। মানসিক স্বাস্থ্যে স্টিগমা আমাদের দেশে যেমন আছে, বিশ্বের অন্যান্য দেশেও আছে।তবে ইদানিং মানুষের সচেতনতা এবং মানসিক স্বাস্থ্য খাতে বিভিন্ন বিনিয়োগ এর কারণে এই স্টিগমা অনেকটাই কমেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে যারা মানসিক স্বাস্থ্য সেবা নিতে এসেছেন তারা বেশিরভাগই পূর্বে মানসিক রোগের চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন এমন মানুষেদের পরামর্শে এসেছেন। সুতরাং মানুষের কাছে মানসিক স্বাস্থ্য সেবাটিকে আরো বেশি পৌঁছাতে হলে আমাদের দেশে মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে হবে, যাতে করে কার্যকরী মানসিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা যায়।

এক্ষেত্রে মানসিক স্বাস্থ্য খাতে বিনোয়োগের কোনো বিকল্প নেই। যদিও বর্তমান সরকারের আমলে যেকোন সময়ের চেয়ে মানসিক স্বাস্থ্যখাতে রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ বেড়েছে। তবে এখন বেসরকারি পর্যায় থেকে মানসিক স্বাস্থ্য খাতে বিনিয়োগ করা খুব জরুরী। বিনিয়োগকারীরা সবসময় তাদের লাভের দিকটি মাথায় রাখেন। তাই তাদেরকে মানসিক স্বাস্থ্য খাতে বিনিয়োগের লাভ বোঝাতে হবে। এবিষয়ে বাইরের দেশে অনেক গবেষণা রয়েছে, সেগুলি তাদেরকে দেখাতে হবে। এবং আমাদের দেশেও এবিষয়ক গবেষণা করতে হবে।

এর পাশাপাশি আন্ডার গ্র্যাজুয়েট পর্যায়ে মেডিক্যাল শিক্ষা কারিকুলামে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে সংযুক্ত করাটা খুব জরুরী। এছাড়া মানসিক স্বাস্থ্য সেবার উন্নতি এবং মানসিক স্বাস্থ্য সেবা মানুষের কাছে বৃহৎ পরিসরে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য বিকল্প পদ্ধতি উদ্ভাবনের বিষয়ে নজর দিতে হবে।

করোনার প্রভাবে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত আমাদের দেশেও সকল বয়সী মানুষদের মধ্যে মানসিক সমস্যার প্রকোপ বেড়েছে। তাই এইসব মানসিক সমস্যা মোকাবিলার জন্য দ্রুতই সংক্ষিপ্ত কোনো বিকল্প পদ্ধতি আমাদেরকে ভাবতে হবে।

সর্বোপরি, মানসিক স্বাস্থ্য সেবা একটি সম্মিলিত চিকিৎসা। এখানে যেমন সাইকিয়াট্রিস্ট সংযুক্ত তেমনিভাবে সাইকোলজিস্ট, সাইকোসোশ্যাল ওয়ার্কার, সাইকিয়াট্রিক নার্স সবাই যুক্ত রয়েছেন। আমাদের দেশে এসব জনবলের ঘাটতি রয়েছে। তাই মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে এসব জনবল বাড়াতে হবে, তাদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। এজন্য বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসতে হবে। এবং মানসিক স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে সামাজিক চাহিদা সৃষ্টি করতে হবে।

সূত্র: মনের খবর টিভিতে প্রচারিত মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের আলোচনায় মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এম এস আই মল্লিক এর বক্তব্য থেকে নেওয়া।

করোনায় স্বজনহারাদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পেতে দেখুন: কথা বলো কথা বলি
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও দেখুন: সুস্থ থাকুন মনে প্রাণে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

হাইপোগোনাডিজম: পুরুষের ক্লান্তি-অবসন্নতা-বিষণ্ণতার কারণ

আপনি কি ক্লান্ত? অবসন্ন? বিষণ্ন? যৌন জীবনের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন? এর মূলে থাকতে পারে রক্তে টেসটোসটেরন হরমোনের স্বল্পমাত্রা বা হাইপোগোনাডিজম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে,...

উদ্বেগ কিংবা আতঙ্কে হৃদস্পন্দন কমাতে সহায়ক পরামর্শ

মানসিক চাপ, অস্বস্তিতে কমবেশি সবাই ভোগেন। তবে তা অসুস্থতার পর্যায়ে পৌঁছালে প্রভাবিত হয় দৈনন্দিন জীবন। প্রচণ্ড ভয়, দুশ্চিন্তা থেকে শুরু করে বুক দপদপানি, হৃদস্পন্দনের গতি...

বায়ু দূষণ করোনাভাইরাসে মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায়

বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে যত মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন তার ১৫ শতাংশের পেছনে ভূমিকা রেখেছে লম্বা সময় বায়ুদূষণের প্রভাব, এমন দাবি করছেন গবেষকরা। বায়ু দূষণ সম্পর্কিত...

শিশুর বিষণ্ণতা দূর করতে করণীয়

আমার মনে আছে আমার সন্তানদের বয়ঃসন্ধি কালের কথা, যখন তাদের বয়স ছিল ১০ থেকে ১৪ এর মধ্যে। তারা তখন না শিশু, না কিশোর। আমরা...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন