মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু

Home আমাকে তোমার মনের কথা বলতে পারো

আমাকে তোমার মনের কথা বলতে পারো

পরিস্থিতি বুঝে সঠিক কাজটি করা এবং যথাযথ কথা বলা একজন ভাল বন্ধু বা সঙ্গীর লক্ষণ।
কাছের মানুষের বিপদে আমরা কোনভাবেই স্থির থাকতে পারিনা। একজন সহানুভূতিশীল ব্যক্তি সব সময়ই অন্যের বিপদে বিচলিত হন। পতি/পত্নী বিয়োগ, পরিবারে কোন শিশুর অসুস্থতা, বেদনাদায়ক বিবাহ বিচ্ছেদ, কিংবা অন্য কোন দুঃখজনক পরিস্থিতিতে কেউ পড়লে তাকে সামলে নেওয়ার জন্য নিজের আচরণ কেমন হবে বা আপনি কি ভূমিকা পালন করবেন সেটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
দুঃখের সময়ে দুঃখ পাওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু এই সময়ে দুঃখী কারও সাথে আপনার আচরণ কেমন হবে সেটি নির্ধারণ করা খুব প্রয়োজন। কোন বিপদগ্রস্ত মানুষ কনভাবেই জেন আমাদের কোন কথা বা কাজের দ্বারা অপমানিত না হয় বা কষ্ট না পায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। তারা জেন নিজেদের কখনোই একা মনে না করে।
একজন সহানুভূতিশীল ব্যক্তিকে বিপদগ্রস্ত মানুষের মন বুঝে কথা বলতে হবে। এতে তার মনের ভার অনেকাংশেই কমে যায়। যখন আপনার একজন বন্ধু বা কাছের কেউ কোন বিপদে পড়ে, আপনার কাছে তার মনের সব কথা খুলে বলে,আপনার প্রথম কাজ হল তাদের কথা মন দিয়ে শোনা। তাদের কোনরূপ উপদেশ বা সাবধান বাণী শোনাতে যাবেননা। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। তার সব কষ্টগুলোর প্রতি সম্মান রেখে , আপনাকে তার সাথে দুঃখগুলো ভাগ করে নিতে হবে।
তার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে প্রথম তার চাহিদাগুলো বোঝার চেষ্টা করুন।জানার চেষ্টা করুন তার আসলে কি ধরনের সাহায্য  প্রয়োজন। তাকে বিভিন্ন কাজের মাধ্যমে আনন্দ দেবার চেষ্টা করুন।  প্রত্যেকটা মানুষ একে অন্যের থেকে আলাদা। তাই তাদের চাহিদাও ভিন্ন ভিন্ন। তাই ভিন্ন ভিন্ন মানুষের সাথে ভিন্ন ভিন্নভাবে মেশার চেষ্টা করতে হবে।
কিছু অনুসরণীয় কার্যাবলী সম্পর্কে ধারণা রখা প্রয়োজন।  বিপদ কেতে গেলেও অনেক মানুষই সেই ভয় থেকে মুক্তি পেতে পারেনা। অনেক সময় তাকে অধিক সময় দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা দেখা যায়। এ সময়ে  আপনার পক্ষ ত্থেকে তাকে  ভরসা এবং ভালবাসা দেওয়াটা খুব জরুরী। তাকে আশ্বস্ত করতে হবে যে, আপনি তার শুভচিন্তক।  একজন বিপদগ্রস্ত মানুষকে কখনোই উপদেশ বা পরামর্শ দিতে যাবেননা।  তাকে তার মত থাকতে দিন এবং তার সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হউন।
দুঃসময়ে বন্ধুদের পাশে দাড়ান এবং তাদের মানসিক শক্তি প্রদান করা একজন ভাল বন্ধু বা সঙ্গীর লক্ষণ। তাদের কথাগুলো মন দিয়ে শুনতে হবে এবং মনের সব দ্বিধা দ্বন্দ্ব দূর করে, তাদের আবেগকে গুরুত্ব দিয়ে তাদের সাথে সুসম্পর্ক স্থাপন করতে হবে। এসব কাজ করলে সম্পর্ক যেমন শুদ্ধ হয় তেমনি সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হয়।
সূত্র: https://www.psychologytoday.com/us/blog/peaceful-parenting/201909/you-can-talk-me
অনুবাদ করেছেন: প্রত্যাশা বিশ্বাস প্রজ্ঞা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

মনের খবর টিভিতে সরাসরি দর্শকদের প্রশ্নের উত্তর দিবেন অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল

সমসাময়িক বিষয় ও মনের স্বাস্থ্য নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন-উত্তর অনুষ্ঠান শুরু করতে যাচ্ছে মনের খবর অনলাইন টিভি। স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড নিবেদিত “মন” নামক অনুষ্ঠানটি প্রতি শুক্রবার...

মানসিক স্বাস্থ্যে অকুপেশনাল থেরাপি

অকুপেশনাল থেরাপি হচ্ছে চিকিৎসা বিজ্ঞানের একটি স্বীকৃত বিভাগ এবং আধুনিক স্বাস্থ্য সেবামুলক পেশা যেখানে শারীরিক বা মানসিক ভাবে অসুস্থ বা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের দৈনন্দিন কাজে...

একাকীত্ব মানেই একা থাকা নয়

সবার মাঝেই এই ধারণা প্রচলিত আছে যে একাকী থাকা মানেই সবার থেকে দূরে একা বসবাস করা এবং একা থাকার কারণেই শুধুমাত্র মানুষ একাকীত্ব নামক...

সুস্থ মন, সুস্থ জীবন

মহামারীর এই দুঃসময়ে সুস্থ থাকতে শরীরের সাথে সাথে মনটাকেও রাখতে হবে চাঙা এবং লালন করতে হবে ইতিবাচক মানসিকতা। কোভিড-১৯ মহামারীর অসুস্থ সময়ে আমাদের সুস্থ জীবন...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন