পৃথিবীর জীবনটা আর ভালো লাগে না

0
405
ফেইল করার ভয়ে পরীক্ষা দেওয়া বন্ধ করে দিই

আমাদের প্রতিদিনের জীবনে ঘটে নানা ঘটনা,দুর্ঘটনা। যা প্রভাব ফেলে আমাদের মনে। সেসবের সমাধান নিয়ে মনের খবর এর বিশেষ আয়োজন ‘প্রতিদিনের চিঠি’ বিভাগ। এই বিভাগে প্রতিদিনই আসছে নানা প্রশ্ন। আমাদের আজকের প্রশ্ন পাঠিয়েছেন – রুস্তম আলী(ছদ্মনাম)-

আমি মাইগ্রেন এ ভুগতে ভুগতে এখন আমি একজন ওসিডি,ডিপ্রেশনের  এবং ডায়াবেটিসের রোগী। বয়স ৩৯ বছর। আমার পৃথিবীর জীবনটা আর ভালো লাগে না। কিন্তু সবাই চাই পৃথিবীতে দীর্ঘদিন বাঁচতে কিন্তু আমার এ রকম ইচ্ছা হয় না। আমার ইচ্ছা হয় ঈমানের সহিত দ্রুত মরে যেতে। আমি এখন কি করবো?

 মাইগ্রেশন আর ডায়বেটিস এর পাশাপাশি বর্তমানে আপনি বিষন্নতায় ভুগছেন। সেই সাথে ওসিডি যদি থাকে তাহলে আপনার সবগুলি সমস্যারই চিকিৎসা করাতে হবে। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। বর্তমানে সবগুলিরই ভালো চিকিৎসা আছে। সঠিক চিকিৎসা করালে আপনি ভালো থাকবেন। আপনি নিশ্চয়ই ডায়াবেটিসের চিকিৎসা করাচ্ছেন। ডায়াবেটিস অবশ্যই কন্ট্রোলে রাখতে হবে। আপনি বর্তমানে কি কি ওষুধ খাচ্ছেন জানা দরকার ছিলো। কোনো ওষুধ না খেলে, ট্যাবলেট আরপোলাক্স ২০ মিগ্রা সকালে নাস্তার পর খেতে পারেন। আর মাইগ্রেনের চিকিৎসার ক্ষেত্রে ওষুধের পাশাপাশি বেশকিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। একাধারে বেশিক্ষণ টিভি, মোবাইল না দেখা, লাইটের দিকে না তাকানো, বেশি ক্ষুধা না লাগানো, পরিমাণ মতো ঘুম, এসব জরুরি। একটা বিষয় খেয়াল করতে হবে আর মাথাব্যথা হওয়ার আগে টের পাওয়া যায়, তখনই অর্থাৎ মাথাব্যথা উঠার আগে যদি দুইবড়ি নাপা ৫০০ মিগ্রা একবারে খেয়ে ফেলেন তবে ব্যাথা উঠার সম্ভাবনা কমে আসে। অবশ্যই ভরা পেটে খেতে হবে। সেইসাথে টেবলেট স্টিমিটিল সকালে আর রাতে ১টা করে টানা কয়েক মাস খেতে পারেন। এতো কিছুর পর বলছি, সরাসরি চিকিৎসা করানোই ভালো। পারলে সরাসরি দেখা করুন। ভালো করে এবং ঈমানে সাথেই জীবন কাটান সেই কামনা করছি। ধন্যবাদ।

ইতি,
প্রফেসর ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব

চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক – মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
সেকশন মেম্বার – মাস মিডিয়া এন্ড মেন্টাল হেলথ সেকশন অব ‘ওয়ার্ল্ড সাইকিয়াট্রিক এসোসিয়েশন’।
কোঅর্ডিনেটর – সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিক (পিএসসি), মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
সাবেক মেন্টাল স্কিল কনসাল্টেন্ট – বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্রিকেট টিম।
সম্পাদক – মনের খবর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here