মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু

Home মনের খবর ব্লগ মনের খবর ব্লগ: সরাসরি প্রশ্নোত্তর

মনের খবর ব্লগ: সরাসরি প্রশ্নোত্তর

মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সাধারণ মানুষকে আরো বেশি সচেতন করার জন্য এবং সাধারণ মানুষের কাছে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা আরো সহজে পৌঁছে দেওয়ার জন্য মনের খবর এর নতুন সংযোজন “মনের খবর ব্লগ”। এই বিভাগে পাঠকের জিজ্ঞাসার সরাসরি উত্তর দিবেন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞগণ।
নিচের Start the discussion লেখা ঘরে আপনার প্রশ্ন অথবা মন্তব্যটি লিখে Post Comment অপশনে ক্লিক করুন। প্রশ্ন অথবা মন্তব্য করার আগে অবশ্যেই নির্ধারিত ঘরে আপনার নাম এবং ইমেইল আইডি বসাতে হবে।
তালিকায় প্রদত্ত বিশেষজ্ঞণ এই বিভাগে পরামর্শ প্রদান করবেন। অনুগ্রহপূর্বক আপনার প্রশ্নটি কার কাছে তা উল্লেখ করুন:
অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব
অধ্যাপক ডা. সুষ্মিতা রায়
ডা. রমেন্দ্র কুমার সিংহ রয়েল
ডা. পঞ্চানন আচার্য্য
ডা. ওয়ালিউল হাসনাত সজীব
ডা. এস এম আতিকুর রহমান
ডা. নাসির উদ্দিন আহমেদ
ডা. শাহরিয়ার ফারুক অনিক
ডা. রাইসুল ইসলাম

34 COMMENTS

  1. আমার নাম আতিকুর রহমান। বয়স ৪০। আমি এক সময় খুব ভয় পেতাম হতাশা কাজ করত অস্তিরতা কাজ করত। ঘুম খুব কম হতো। অনেক সময় ঘুম হতো ই না। মাথায় সব সময় কোন না কোন চিন্তা ঘুরতে থাকত। তখন ডাক্তার দেখালে আমাকে Rivotril.5 mg দেন। আজ প্রায় ১৫ বছর এর ধরে Rivotril.5mg খাসচি।এখন অন্য সমস্যা তেমন নেই কিন্তু ঘুম খুব কম হয়। medicine ট া বাদ দেয়ার অনেক চেষ্টা করেচি কিন্তু medicine টা বাদ দেয়ার কিন্তু পারি না। মেডিসিন বাদ দিলে খুব খারাপ লাগে। আপাতত দয়াকরে আমাকে একটা মেডিসিন সাজেস্ট করেন যেটা খেলে আমার ঘুম হবে আর আমি Rivotril টা বাদ দিতে পারবো।

    • মূলতঃ Rivotri জাতীয় ঔষধটি একটি ঘুমের ঔষধ যা উদ্বিগ্নতার চিকিৎসায় অন্য ঔষধের সাথে স্বল্পমেয়াদী সময়ের জন্য ব্যবহার করা হয়। অন্যথায় ঔষধটির উপর নির্ভরশীলতা হয়ে পড়ে যা আপনার ক্ষেত্রে হয়েছে। যেহেতু ঘুম কম হওয়া ছাড়া বর্তমানে আপনার তেমন কোনো সমস্যা নাই কাজেই আপাতত আপনি ঔষধটি আস্তে আস্তে (প্রথম এক সপ্তাহ চার ভাগের তিন ভাগ তারপর অর্ধেক এভাবে) কমানোর চেষ্টা শুরু করেন। সাথে আপনি স্লিপ হাইজিন মেনে চলুন যেমনঃ প্রতিদিন একই সময়ে ঘুমের অভ্যাস করুন, দিনের বেলা ঘুমাবেন না, চা, কফি সিগারেট পান থেকে বিরত থাকুন, নিয়মিত হাল্কা ব্যায়াম করুন ও হাটুঁন, ঘুমের ঘন্টা খানেক আগে কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করুন, ঘুমানোর সময় স্ট্রেসফুল কেনো চিন্তা করা থেকে বিরত থাকুন ইত্যাদি। সমস্যা হলে যোগাযোগ করবেন। ধন্যবাদ।

      • ধন্যবাদ। revotril.5 খেলে যে খুব ঘুম হয় তা না। শুধু অস্তিরতা টা থাকে না। আপনি যে ভাবে বলেসেন আমি সে ভাবে চেষ্টা করেছি । কিন্তু পারিনা doss একটু কমালে খুব অস্থির হয়ে যাই। আবার doss বারাতে হয়। খুব কনফিউশান এ ভুগি। কিছু ই মনে রাখতে পারি না। আবার খুব সেক্সুয়াল সমস্যাহয় revotril খেলে।

        • সুস্মিতা রায় মেডাম একটু সাহায্য করবেন দয়া করে। Rivotri. 5 খেয়ে ই ঘুম হয় না ভালো করে। আর Dose একটু কমিয়ে দিলে আর ও ঘুম হয় না। Dose কমিয়ে চেষ্টা করেছি পারি নাই। খুব খারাপ লাগে। অস্তির হয়ে জাই। কিছু মনে রাখতে পারিনা। খুব কনফিউশান এ ভুগি। মাথা ভার হয়ে থাকে সব সময়। সব সময় মনে কোন না কোন চিন্তা ঘুরতে থাকে। পরিচিত একজন ডাক্তার Rivotril.5 এর সাথে Mitrazin 15mg খেতে বলেছিলেন। আমি একদিন খেয়েছি । ভালো ই লাগছিল সেদিন। বলেছিলেন সমস্যা কমে গেলে ধীরে ধীরেঔষধ বন্ধ করে দিতে। আমি মনোরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ ছাড়া খেতে সাহস পাছছি না।একটু সাহায্য করেন দয়া করে। ধন্যবাদ।

          • ধন্যবাদ। আপনাকে আমি আগেই বলেছিলাম যে, দীর্ঘদিন ধরে Rivotril খাওয়ার ফলে এর প্রতি আপনার নির্ভরশীলতা তৈরি হয়েছ। যেহেতু ঘুৃমের সমস্যা ছাড়াও আপনার অন্য উপসর্গও আছে তাই আপনি Tab Mitrazin 15 mg ১টা করে আপাতত রাতে খাওয়া শুরু করতে পারেন। কিন্তু এ ওষুধটি একটু দীর্ঘদিন খেতে হবে। একদিন বা এক সপ্তাহ খেলে কাজ হবে না। আর এর পাশাপাশি আপনি Tab Rivotril আস্তে আস্তে বাদ দেয়ার চেষ্টা করেন ও স্লিপ হাইজিন যা আগে বিস্তারিত বলপছিলাম তা সঠিকভাবে মেনে চলার চেষ্টা করুন। আপনার সুস্থতা কামনা করছি।

  2. অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব স্যারের কাছে জানতে চাই?
    কেউ যদি দীর্ঘদিন যাবৎ মানসিক রোগের ঔষধ খেয়ে যায় এবং সেই ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় তার ইরেকটাইল ডিসফাংশন বা লিঙ্গ উত্থান সমস্যা হয় তারপরও যদি মানসিক রোগ ভালো করার জন্য মানসিক চিকিৎসার ঔষধ গুলো খেয়ে থাকে তার কি চিরস্থায়ী ভাবে ইরেকটাইল ডিসফাংশন রোগ হয়ে যাবে যেটা কখনো সারবে না এমন হয় কি?
    নাকি দীর্ঘদিন ঔষধ সেবনের ফলে মানসিক রোগ ভালো হওয়ার পর চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে মানসিক রোগের ঔষধ গুলো বন্ধ বা পরিবর্তন করলে উক্ত ইরেকটাইল ডিসফাংশন ভালো হয়ে যাবে কি?
    এটাই আমার প্রশ্ন?

    • হুম। আপনি ঠিকই বুঝতে পেরেছেন। এসব সাইড ইফেক্ট সাধারণত ডোজ রিলেটেড হয়। ওষুধের ডোজ যত বেশি হবে সমস্যাও তত বেশি হবে। ওষুধ কমিয়ে আনলে সমস্যাও কমে আসবে। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এটা চিরস্থায়ী কোনো সমস্যা নয়।
      আপনাকে ধন্যবাদ।
      মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোন থাকলে আমাদেরকে জানাতে কুণ্ঠা করবেন ।

  3. অামার পাঁচ বছরের দাম্পত্য জীবন। অামার স্ত্রীর বর্তমান বয়স ২৬ বছর। অামার বয়স ৩৫ বছর। অামার ২০ মাস বয়সী একটি মেয়ে অাছে। আমার স্ত্রী মেয়েটাকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর জবরদস্তি করে দিনে ৪-৫ বার সুজি এবং গরুর দুধের মিশ্রণ ফিডার দিয়ে খাওয়ানোর চেষ্টা করে। শিশু রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ হলো, তাকে মাছ, ভাত, সবজি, তরকারি খাওয়ানো শিখাতে হবে। প্রয়াজনে তাকে দু’এক বেলা ফিডার না দিয়ে তার মধ্যে ক্ষুধা তৈরি করতে বলেছেন। কিন্তু সে ডাক্তারের পরামর্শ মানতে নারাজ। মেয়ে ফিডার না খাইতে চাইলে অামার স্ত্রী প্রায়ই তাকে শারীরিক টর্চার করে এবং ধমক দেয়। রাতে বা দিনে অনেক সময় মেয়েটি না ঘুমাতে চাইলে তাকে শারীরিক টর্চার করে। রাতে বাচ্চারা অনেক সময় বিভিন্ন পজিশনে ঘুমাতে চায় যেমন্ কাত হয়ে, চিৎ হয়ে ইত্যাদি। অামার স্ত্রী মেয়েটাকে একটি নির্দিষ্ট পজিশনে শুইয়ে ঘুম পাড়ানোর চেষ্টা করে। ঐ পজিশন থেকে একটু নাড়াচাড়া করলেই মেয়েটাকে রাতের বেলায় ঘুমের মধ্যেই ধমক এবং মারধর শুরু করে। মেয়েটা তখন ঘুম থেকে ওঠে অামাকে দেখে বাবা, বাবা বলে চিৎকার করে জড়িয়ে ধরে। অামার স্ত্রীকে শিশুদের খাওয়ানো, পড়ানো, লালন, পালন বিষয়ক বিভিন্ন জার্নাল, বই পুস্তক, অনলাইন মিডিয়ার সহায়তা নেয়ার পরামর্শ দিলেও তাতে সে কখনোই কর্ণপাত করে না।
    অামার পর্যবেক্ষণ:
    ১. অামার শিশুটি শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারের শিকার
    ২. আমার স্ত্রীকে মানসিকভাবে অসুস্থ মনে হয়
    ৩. স্ত্রীকে বুঝিয়ে অামি ব্যর্থ হয়েছি
    ৪. অামার স্ত্রী কোনো মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতেও নারাজ
    ৫. মেয়েটার ছোট খাট খেলাধূলাটাকেও সে নিরুৎসায়িত করে
    ৬. মেয়েটা অামার সাথে থাকতে বেশি পছন্দ করে যদিও অামি তাকে বেশি সময় দিতে পারি না। অামার প্রতি অাগ্রহের কারণ, তাকে অামি একটু খেলাধূলার স্বাধীনতা দেই। ছোটখাটো শিশুসুলভ চাওয়াগুলোকে প্রশ্রয় দেই।
    অামার প্রশ্নঃ
    অামার স্ত্রী টাকে অামি কিভাবে বুঝাতে পারি? অার শিশুটিকে এই অবস্থা থেকে কিভাবে স্বাভাবিক জীবনে বের করে অানতে পারি বা অামার অবস্থানটা কি হওয়া উচিত?

    • আপনাকে ধন্যবাদ যে আপনি পরামর্শ চেয়েছেন কারণ সাধারণত এই ধরনের সমস্যায় স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের অবনতি হয়। কিন্তু আপনার ক্ষেত্রে সেরকম হবেনা বলেই আমার বিশ্বাস কারণ আপনি সমস্যাটা ধরতে পেরেছেন এবং তার সমাধানও বুঝেছেন।
      আপনি যতটুকু বর্ণনা করেছেন তাতে বুঝতে পারছি যে আপনার স্ত্রী সম্ভবত কোন মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। এই সমস্যা সাধারণ দুশ্চিন্তা থেকে শুরু করে বড় কোন সমস্যাও হতে পারে যা উনার সাথে সামনাসামনি কথা না বলে নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে আপনার সমস্যা হলো যে আপনি তাকে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে নিতে পারছেন না। আসলে আমাদের সমাজে একটি ভ্রান্ত ধারণা আছে, আর তা হলো, মনোরোগ মানেই “উন্মাদ” হওয়া আর মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়া মানেই নিজেকে “পাগল” বলে প্রমাণ করা। আপনার স্ত্রীও সম্ভবত তাই মনে করছেন। এক্ষেত্রে আপনি যা করতে পারেন তা হলো- ১. উনাকে বুঝান যে মনোরোগ মানেই খারাপ কিছু নয়। হয়তো উনার সমস্যা খুব ছোট যার খুব সহজ বৈজ্ঞানিক সমাধান রয়েছে। ২. একজন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিলে আপনাদের সম্পর্কের জন্য সেটা ভাল হবে এবং আপনাদের সন্তানের জন্যও ভাল হবে তাও তাকে বুঝান। ৩. উনাকে এইটাও বুঝান যে, এমনও হতে পারে – আপনার স্ত্রীর হয়তো কোনো সমস্যা নেই বরং আপনারই সমস্যার জন্য আপনিই তাকে ভুল বুঝছেন। আর এটা নিশ্চিত করার জন্যও আপনাদের দুজন একসঙ্গে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়া প্রয়োজন। ৪. যদি কোন ভাবেই আপনি তাকে বুঝাতে না পারেন, সেক্ষেত্রে আপনার পরিবারের এমন কোন ব্যক্তি যার কথা উনি মান্য করেন, তাঁর সাহায্য নিতে পারেন।
      মনে রাখবেন, সমস্যা যত দীর্ঘায়িত হবে সমাধান ততই কঠিন হবে।

  4. অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব স্যারের কাছে পরামর্শ চাই।
    স্যারকে পূর্বের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।
    বর্তমান প্রশ্ন: স্যার অামার বয়স ২৯।বিবাহিত। নিয়মিত মানসিক অসুস্থতার ঔষধ খাই। অামার অসুখটা হলো অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিসওর্ডার বা (OCD)।ও যৌন উত্তেজনা ও ইরেকশন সমস্যা(ED)। বর্তমানে এই ঔষধ গুলো খাচ্ছি:
    ১.Tab.Anafranil( clomipramine) 25 mg= 0+0+1
    ২.Tab Oxat (paroxetine) 20mg=0+0+1
    ৩.Tab Ariprex (Aripiprazole) 10mg=0+0+1(half of 10 mg)
    ঔষধ গুলো অনেক বছর ধরে খাচ্ছি।বর্তমানে (OCD) অসুখটা নিয়ন্ত্রণে অাছে। এটা বর্তমান ডোজ। কিন্তু সমস্যা হলো( Errectile Dysfunction )। এই ঔষধ গুলোর কারণে কি অামার penis ইরেকশনের সমস্যা হচ্ছে?
    উল্লেখ্্য অামার উপরোক্ত রোগ ছাড়া অন্য কোন অসুখ নেই।
    অধ্যাপক ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব স্যারের কাছে পরামর্শ চাই।
    স্যারকে পূর্বের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।
    বর্তমান প্রশ্ন: স্যার অামার বয়স ২৯।বিবাহিত। নিয়মিত মানসিক অসুস্থতার ঔষধ খাই। অামার অসুখটা হলো অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিসওর্ডার বা (OCD)।ও যৌন উত্তেজনা ও ইরেকশন সমস্যা(ED)। বর্তমানে এই ঔষধ গুলো খাচ্ছি:
    ১.Tab.Anafranil( clomipramine) 25 mg= 0+0+1
    ২.Tab Oxat (paroxetine) 20mg=0+0+1
    ৩.Tab Ariprex (Aripiprazole) 10mg=0+0+1(half of 10 mg)
    ঔষধ গুলো অনেক বছর ধরে খাচ্ছি।বর্তমানে (OCD) অসুখটা নিয়ন্ত্রণে অাছে। এটা বর্তমান ডোজ। কিন্তু সমস্যা হলো( Errectile Dysfunction )। এই ঔষধ গুলোর কারণে কি অামার penis ইরেকশনের সমস্যা হচ্ছে?
    উল্লেখ্্য অামার উপরোক্ত রোগ ছাড়া অন্য কোন অসুখ নেই।

    • হুম। হতে পারে। হুম, হতে পারে। পাশাপাশি শারীরিক বা মানসিক অন্য কোনো রোগ না থাকলেও অন্য কোনি বিষয়ে মানসিক দ্বন্দ আছে কিনা সেটা দেখেতে হবে। যৌন রোগ বা ইরেকটাইল ডিসফাংশন অনেক মানসিকে রোগ বা শারীরিক রোগের কারনে হয় বা ওষুধের কারনে সেটা ঠিক আছে। তবে সময় যে দৃশ্যমান কারণই থাকে এমন কোনো কথা নেই। দুজুনের ভতির দ্বন্দ, অন্য কোনো বিষয়ে দুঃশ্চিন্তা বা মনোযোগের অভাব সহ অনেক কারনেই এমন হতে পারে। তবে আপনারে ক্ষেত্রে ওষুধের কারনে এটা হতেও পারে। আপনি এসব নিয়ে আপনার ডাক্তারের সাথে আলাপ করতে পারেন। আপাতত টেবলেট এনাফ্রেনিল বন্ধ করতে পারেন। আর একটা ছোট বিষয, যৌন মিলনের আগে আগে এই ওষুধ না খেয়ে বরং যৌন বিলনের পরে ওষুধ খেতে পারেন। অনেক সময় ওষুধ খাওয়ার সাথে সাথে যৌনউত্তেজনা ব্যহত হয়। ধন্যবাদ।

  5. আমি জান্নাত ।আমার বয়স ২৮ বছর।আমার অল্পতেই খুব রাগ হয়ে যায় এবং খুব মাথাব্যথা করে যা আমি কোন ভাবে নিতে পারি না এইজন্য আমার husband এর সাথে ও খুব ঝগড়া হয়
    মাঝে মাঝে মনে হয় নিজেকে শেষ করে ফেলি এতো রাগ হয়
    আমি জানতে চাই কিভাবে আমি আমাকে বদলাতে পারি

    • আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনি যতটুকু তথ্য দিয়েছেন তাতে আপনার রোগটিকে নির্দিষ্ট করা কঠিন। কারন, আপনার সমস্যাটি কি অল্প বয়সেই শুরু হয়েছে নাকি অল্প কিছুদিন ধরে হচ্ছে সেটা জানা জুরুরি। আপনার দেয়া তথ্য হতে দেখা যাচ্ছে আপনি অল্পতেই রেগে যান, মাথা ব্যাথা হয় ও হাসবেন্ডের সাথে খারাপ আচরণ করে ফেলেন এবং নিজেকে শেষ করে ফেলতে ইচ্ছে হয়। এসব লক্ষন বিসন্নতা বা ডিপ্রেশনে আসতে পারে যদি এর সাথে আপনার মনে বেশির ভাগ অশান্তি থাকে, স্বাভাবিক কাজকর্মে আনন্দ কমে যায়, ঘুম বা খাওয়া দাওয়ায় সমস্যা দেখা দেয়, সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতে থাকেন, কাজে মনোযোগের অভাব দেখা দেয় , নিজেকে অপরাধী ভাবেন কিংবা আত্মহত্যার চিন্তা আসতে থাকে যা কমপক্ষে ১৫ দিন বা তার অধিক সময় ধরে হচ্ছে এবং আপনার দৈনন্দিন স্বাভাবিক জীবন এতে করে ব্যহত হচ্ছে। আবার আপনার সমস্যাগুলো ব্যাক্তিত্বের রোগ থেকেও আসতে পারে। আপনি রেগে গিয়ে নিজের ক্ষতি নিজে করেন কিনা, যেমন হাত কাটা, অষুধ খেয়ে ফেলা ইত্যাদি, আপনি সন্দেহ প্রবন কিনা, আপনার মনের অবস্থা খুব তারাতারি উঠানামা করে কিনা এসব বিষয়ও জানা জরুরি। কারণ এ সমস্যাগুলো বর্ডারলাইন পারসোনালিটি ডিজঅর্ডার এ দেখা যায়। এর সাথে নেশাদ্রব্য গ্রহনের ইতিহাস জানাও জুরুরি কারন এখন অনেক নারী এর সাথে জরিত। তাই চিকিৎসা ঠিক করতে চাই সঠিক রোগ নির্নয়। কারন রোগ নির্নয় যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনি এর মাত্রা বোঝাও জরুরি। রোগ ও মাত্রা অনুযায়ী চিকিৎসা ঠিক করতে হবে। মানসিক রোগে দুই ধরনের চিকিৎসা প্রয়োজন হতে পারে, যেমন ওষুধ ও সাইকোথেরাপি। আপনার ক্ষেত্রেও যেমন রাগ নিয়ন্ত্রণের জন্য এনগার ম্যানেজমেন্ট প্রয়োজন তেমনি ওষুধেরও প্রয়োজন হতে পারে যা একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ঠিক করবেন। তাই পরিশেষে বলতে চাই রোগ জটিল হওয়ার পূর্বেই যথাশীঘ্র নিকটস্থ একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

  6. ঘরে বন্দি থাকাতে ইদানিং আমার ঘুম ভীষণ রকম কমে গেছে আবার একটু ঘুম হলেও শুধু দুঃস্বপ্ন দেখি। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবো কিভাবে?

    • হুম। এই সমস্যা বর্তমানে অনেকেরই হচ্ছে। যেহেতু পরিশ্রম কম, হাটাচলা কম তাই এটা হতে পারে। তাই এমনটা হয়। আপনি প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময়ে ঘুম থেকে উঠবেন, নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে যাবেন। দিনের বেলা বিছানায় যাবেননা, শুবেন না। সোফায়ও শুয়ে থাকবেন না। বিকালের দিকে হাটাহাটি করবেন, এঘর থেকে অন্যঘরে যেতে পারেন বা ডাইনিং টেবিলের চারপাশে হাটতে পারেন। চা-কফি না খেলেই ভালো। যদি খেতে চান, বিকালের পর আর খাবেনা না। রাতে যখন বিছানায় যাবেন, একেবারে ঘুমের জন্যই যাবেন। বিছানায শুয়ে বই পড়া, গল্প করা, টিভি, মোবাইল – ফেইসবুক দেখা নিষেধ। বিছানা মানে ঘুম। কয়েকদিন করেন দেখবেন আপনার সমস্যা কমে আসবে। আপাতত ওষুধ খাওয়ার দরকার নাই।
      মনের খবর মেইন সাইটে ঘুম, ঘুমের সমস্যা নিয়ে প্রচুর লেখা আছে। কষ্ট করে পড়বেন।
      যদি এসবে কাজ না হয়, তবে আবার যোগাযোগ করবেন।
      নিচে একটা লিংক দেয়া হলো, এটা ধরে আরও অনেক লেখা পবেন।
      https://www.monerkhabor.com/featured/2016/07/11/6820/

  7. শ্রদ্ধাভাজন রমেন্দ্র কুমার সিংহ স্যার,
    আমি আপনার অধীনে নিয়মিত চিকিৎসা নিচ্ছি, প্রতি বছরে একবার সাক্ষাতে ব্যবস্থাপত্র নিয়ে থাকি, কারণ প্রবাসী । গত ১২ ফেব্রুয়ারী ২০ ইং সনে আপনার সাথে সিলেট ল্যাব এইডে দেখা করে পরামর্শ নিই এবং প্রবাসে (সৌদী আরব) চলে আসি । আপনার দেয়া ফ্লুজিন ও প্যারোটিন সেবন করছি এবং উন্নতি হচ্ছে । আামাকে দয়া করে জানাবেন ফ্লুজিন – 5 কি চলবে নাকি একটা সময় বন্ধ করতে হবে । আমার বয়স 50, আশা করছি আপনার সদয় পরামর্শ আমার স্বাস্থ্যের উন্নতিতে কাজ লাগবে । ভালো থাকবেন Sir এই কামনায় ।

  8. আদাব,
    আমার নাম রুভেল, বয়স ৩২ বছর, অবিবাহিত। আমি ২০১৩ তে ইউকে তে যাই পড়াশুনা (গ্রাজুয়েসন) করার জন্য। কিন্তু ২০১৩ তে মানুষিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পরি তাই পড়াশুনা অসমাপ্ত রেখেই দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হই। ১ বছর চিকিৎসা করার পর আমি দেশে একটা প্রতিষ্ঠান থেকে আমার গ্রাজুয়েসন শেষ করে এমবিএ করি। আমার চিকিৎসা এখনো চলছে। বর্তমানে আমি একটা বেসরকারী কোম্পানিতে ছোট একটা চাকরি করছি। কিছু দিন আগে আমি YOUTUBE এ আপনার একটা ভিডিও দেখে বুজতে ও জানতে আমি পারি আমি সিজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত ছিলাম এবং একটা সময় এই রোগের সব গুলো লক্ষণই আমার মধ্যে ছিল। আমার চিকিৎসকের কাছে জানতে চাইলে তিনিও বলেন আমি Mild schizophrenia তে আক্রান্ত ছিলাম। এখন আমার মধ্যে Schizophrenia কোন লক্ষণ নেই । তবুও তিনি আমাকে একটি ঔষধ সারাজীবন চালিয়ে যেতে বলেছেন। যা হল-
    Aripiprazole 10 mg tablet 0+0+1
    ইউকেতে থাকার সময় আমি গাঁজাতে আসক্ত হয়ে গিয়ে ছিলাম এবং প্রায় প্রতিদিন গাঁজা খেতাম। যা আমার ডাক্তারের কাছে বলি নাই। এবং আমার পিতা ও schizophrenia তে আক্রান্ত ছিলেন।
    আমার মায়ের একক চেষ্টায় এবং ডাক্তারের সহযোগিতায় আমি সুস্থ হয়েছি। তবে সিধান্তহীনতায় এখনো ভুগি।
    আমার প্রশ্ন হলঃ
    ১। আমি কি কোনদিন ঔষধ বন্ধ করতে পারবো?
    ২। গাঁজার কারনে কি আমার schizophrenia হয়েছিল?
    ৩। আমি কি মেডিটেশন করতে পারবো?
    ৪। আমি কি বিয়ে করতে পারবো?
    আপনার মতামত দিলে কৃতজ্ঞ থাকব।
    ধন্যবাদ,
    রুভেল

    • আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনি যেহেতু ঔষধ খেয়ে সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন, কাজেই ঔষধ বন্ধ করতে পারবো কিনা কিংবা সারাজীবন ঔষধ খেতে হবে কিনা এসব বিষয়ে চিন্তা না করাই ভালো। সময়ই নির্ধারণ করবে আপনি ঔষধ বন্ধ করতে পারবেন কিনা। সিজোফ্রেনিয়া রোগে সাধারণত সারাজীবন ঔষধ খাওয়া লাগে, আবার অনেক সময় আস্তে আস্তে রোগের উপসর্গের উপর ভিত্তি করে ঔষধের ডোজ কমিয়ে এনে একটা সময় ঔষধ ছাড়াও রোগী সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পারে। তবে এটা শুধুমাত্র চিকিৎসকের assessment এর ঊপর নির্ভর করে। গাঁজা জাতীয় দ্রব্যের নেশার কারণে অনেক সময় সিজোফ্রেনিয়ার মতো রোগ হতে পারে। তবে যেহেতু আপনার এ রোগের পারিবারিক ইতিহাস আছে কাজেই আপনার ক্ষেত্রে এটা গাঁজার কারণেই হয়েছে এটা বলা যাবে না। আপনি অবশ্যই মেডিটেশন করতে পারবেন ও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবেন। তাই বিয়ে করতে কোনো বাঁধা নেই। তবে বিয়ের আগে রোগ বিষয়ে ভবিষ্যৎ জীবন সঙ্গীনির সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা করে নেয়াই ভালো। অন্যান্য সকল রোগর মতোই এটি একটি রোগ যা চিকিৎসায় নিয়ন্ত্রণে থাকে।
      আপনার সুস্থ ও সুন্দর জীবন প্রত্যাশা করছি।

  9. আমার বয়স ২৮। আমি এখনও বেকার। আমার সমস্যা হলো সবসময় মনে মনে ভাবতে থাকি৷ উদ্বট বিষয় নিয়ে সবসময় ভাবি। এই ধরুন আমি দূর ভবিষ্যতে একটা রাড়ি করবো৷ বাড়িটা কেমন হবে, কয়টা রুম হবে, কোন রুম কি রং হবে, আমার রুমের কোথায় কোন ফার্নিচার থাকবে ইত্যাদি। শুধু এটাই নয় যে কোন বিষয় নিয়ে এভাবে ভাবতেই থাকি। মাঝে মাঝে নিজের কাছেই নিজেকে পাগল মনে হয়৷ এটাকি কোন সমস্যা। যদি সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে এর সমাধান কি??

  10. Amar name jwelrana amar boyos 33 Ami susmita roy mem er kache jante cai ami aj onek bosor jabot manusek babe khub cape thake ebong sobsomoy moner modde osante lage kono kecu mone rhakte parina matha guray maje modde matha betha kore onek amar mind sobsomoy sondeh probon thake tar por samanno kesu hole khuv osante lage moner modde sob somoy boye kaj kore mone hoy keu amake khoti kortace tarpor kono kisu problem hoyar agee mathai tension lage osante lage sobsomoy mon kharaf thake please amake ektu help koren jeno hasi khuse vabe beche thakte pari ektu fresh mind e thakte pari please aktu kosto kore amar answe ta deben please please jodi sombbab hoy apnar phone number ta ektu deben

    • প্রশ্নের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার রোগের ইতিহাস থেকে আপাতদৃষ্টিতে বোঝা যাচ্ছে যে, আপনি বিষন্নতা রোগে ভুগছেন। কোনো কিছু ভালো না লাগা, মনোযোগ কমে যাওয়া বা কিছু মনে রাখতে না পারা, সবসময় অশান্তি বোধ হওয়া ইত্যাদি সাধারণত বিযন্নতা রোগের উপসর্গ। এ রোগে অনেক সময় শারীরিক কিছু উপসর্গ যেমন মাথাব্যথা, মাথা ঘুরানো, দূর্বলতা ইত্যাদিও আসতে পারে। আবার অনেক সময় নেতিবাচক চিন্তা ও মন খারাপের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কিছু সন্দেহপ্রবণতাও আসতে পারে বিষন্নতা রোগে। এসব উপসর্গের অনেকগুলোই আপনার মধ্যে আছে। তবে নিশ্চিত হওয়ার জন্য বা এটা অন্য কোনো মানসিক রোগ কিনা তা জানার জন্য আপনার বিস্তারিত ইতিহাসসহ সম্পূর্ণ মানসিক অবস্থা পরীক্ষা করা আবশ্যক। তাই সঠিক রোগ ও রোগের মাত্রা নির্ণয় করেই কেবলমাত্র চিকিৎসা ঠিক করতে হবে। মানসিক রোগে সাধারণত দুই ধরনের চিকিৎসার প্রয়োজন হয়; ঔষধ ও সাইকোথেরাপি। তবে উপসর্গ অনুযায়ী বলা যায় যে, এই মূহুর্তে আপনার চিকিৎসায় দীর্ঘমেয়াদী ঔষধের প্রয়োজন আছে। তাই বিস্তারিতভাবে পরামর্শ নেয়ার জন্য আপনি আপনার সুবিধামতো একজন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের সাথে যোগাযোগ করেন। সঠিক চিকিৎসায় আপনার উন্নতি হবে ও আপনি ভবিষ্যতে হাসি খুশি ভাবে বেঁচে থাকতে পারবেন এটুকু নিশ্চয়তা অবশ্যই আপনাকে আমি দিতে পারি

  11. অধ্যাপক ডাঃ সালাহ উদ্দীন কাওসার বিপ্লব স্যার সালাম নিবেন।আমি এম রহমান বয়স 36 বছর ।আমি প্রায় 13 বছর থেকে চিকিত্সা নিচ্ছি ও ওষুধ খাচ্ছি ।আপনার কাছে বিএসএমএমইউ তে আড়াই বছর থেকে চিকিত্সা নিচ্ছি।আমার রোগ ডায়াগনসিস করেছিলেন মেজর ডিপ্রেশন।আমার সমস্যা ছিল অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা, সব সময় মন খারাপ থাকতো নিজেক অসুখী মনোহত,আত্মবিশ্বাস ছিলনা,মনোযোগের অভাব ছিল,আত্মহত্যার চিন্তা আসত।স্যার আল্লাহর রহমতে আমি এখন বেশ ভালো আছি। উপরে সমস্যা গুলি এখন আর নেই। স্যার আপনার পরামর্শ অনুযায়ী আড়াই বছর থেকে মিটরাজিন 30mg এবং গত ছয় মাস থেকে লেমোজিন 50mgখাচ্ছি এবং ওষুধ গুলি এখনও চলমান। স্যার সর্বশেষ গত ফেব্রুয়ারি মাসে আপনার সাথে যোগাযোগ করি।দুইমাস পর যোগাযোগ করতে বলেছিলেন কিন্তু করোনার কারনে যেতে পারছিনা।স্যার আপনার পরামর্শ চাচ্ছি। আপনার পরামর্শ পেলে খুবই উপকৃত হবো।

  12. আমি অনেকদিন ধরে পাক নাপাক নিয়ে মানসিক সমস্যায় ভুগছি।
    বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারনে কোনো ডাক্তার দেখাতে পারছি না। এখন আমার করনীয় কি এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাব?

  13. ২০১৯ সালের জুলাই তে আমার জীবনের নব কালো অধ্যায়ের সূচনা।হঠাৎ আশেপাশের কয়েকজন ইঙ্গিতে বুঝায় যে আমার মানসিক সমস্যা হইছে । তারপর,আমি বিষয়টা ভালোভাবে উপলব্ধি করতে শুরু করলাম,আসলে কি! তারপর,আসলেই আমি বুঝতে পারলাম যে আমার কিছু সমস্যা হচ্ছে যেমন,রাস্তা দিয়ে যখন হাটতাম তখন খুব অস্বাভাবিক লাগতো,ক্রিকেট খেললে আশপাশ দিয়ে বল গেলে ভয় পেতাম না কিন্তু পরে একটু ভয় পাইতাম,,মনে হতো মাথার ভিতরে উলুট পালুট ভাব,অস্বাভাবিক ভাব, অন্যরকম এক অস্বাভাবিকলাগতো কেমন যেন,,,দিনের বেশির ভাগ সময় ভালো লাগতো না,,,,,,,এইসব কিছু বুঝে মানুষ আমাকে পাগল ভাববে/ মানহানি হবে তাই আমি জায়গা চেঞ্জ করছি,তাও সমস্যা রয়ে যায়।।তারপর,আর সহ্য করতে না পেরে সাইকিয়াট্রিস্টেের কাছে যাই পরিবারকে না জানিয়ে,,,,৭ দিন খাইলাম ঐষধ, মনে হইছে একটু ভালো লাগছে কিন্তু ঘুম বেশি হইতো পরিবারের কান্নাকাটি এত ঘুম কেন ও পরীক্ষার কথা ভেবে আর খাই নি।পরীক্ষার পর আবার ৩ দিন খাওয়া শুরু করছি, ৩ দিনের মাথায় সাইড ইফেক্ট দেখা দিছে গুরুতর ভাবে,,,,,,জিহ্বা বের হয়ে যায় শুধু ; এই ভয়াবহ অবস্থ। তারপর আর খাই নি।এখন,বর্তমানে,,,,আমি আসলেই নরমাল লাইফ লিড করতে পারি,, সবকিছু ঠিকঠাক মতই করি কিন্তু ভিতরে ভিতরে আমার কাছে কেমন যেন লাগে,,,সবসময় মাথাটা ভার ভার, কেমন যেন অস্বাভাবিকলাগে,,,,,সামান্য প্রেসারে হাত পা কাপেঁ,,,,শরীর একটু গরম থাকে,,,,টুকটাক খুব কম সময়ে এটা সেটা কোথায় রাখছি ভুলে যাই;নিতে মনে থাকে না কিন্তি প্রায় পরে মনে হয়,,,,,বিশেষকরে মাথাটা কেমন যেন ভারভার অস্বাভাবিক; ভিতরে ভিতরে অস্বাভাবিকযন্ত্রণাদেয়,,,,,শুধুই আমি বুঝি।করণীয় কী?? পরামর্শ দিবেন প্লিজ।

  14. অধ্যাপক সালাউদ্দিন স্যারের কাছে জানতে চাই আমি এন্টি ডিপ্রেশান্টের সাইড ইফেক্টে ভুগছি কিভাবে এর থেকে মুক্তি পেতে পারি। স্যার আমার বয়স ২৭ চট্রগ্রামে থাকি। আমার সমস্যা শুরু হয় অবসেসিব থট দিয়ে সাইকিয়াট্রিস্ট এর গেলে আমাকে Prodep 20 mg দেয়৷ প্রায় ২ বছর সাত মাস Prodep খেয়ে ভালোই ছিলাম কিন্তু অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া আর মুখে প্রচুর ব্রণ উঠার ফলে আমি Prodep বন্ধ করে দেয় এবং তখন আমার ওসিডি একদম ভালো হয়ে গেছিলো। Prodep বন্ধ করার পাচ মাস পর আমার প্যানিক এটাক এবং এংজাইটি হলে আমি আবার সাইকিয়াট্রিস্ট এর কাছে যায়। এবার আমাকে Relafin 50mg 1+0+0, Riscord 2mg 0+0+1, Zolium . 50 mg 0+0+1 করে দেয়। অবস্থার উন্নতি না হলে আবার সাইকিয়াট্রিস্ট এর কাছে গেলে আমাকে আবার Prodep 20mg 1+0+1, Rivotril . 50mg 0+0+1 দেয় এর পর ২ মাস খুব ভালো ছিলাম। প্রচন্ড চোখ ব্যাথা শুরু হলে চোখের ডাক্তারের কাছে যায় উনি জানান এন্টি ডিপ্রেশান্ট খাওয়ার ফলে আমার চোখের সিলেয়ারি মাসল দুর্বল হয়ে গেছে। যথারীতি সাইকিয়াট্রিস্ট এর কাছে গেলে এবার শুধু Clofranil 25 mg দেয়। Clofranil 25mg খেয়ে পাচমাস খুব ভালো ছিলাম পাচ মাস পর প্রচন্ড Lower abdomina pain শুরু হয় ওষুধ বন্ধ করলে পেইন হয় না।ওষুধ খেলেই পেইন টা হয়। এরপর আবার সাইকিয়াট্রিস্ট এর কাছে গেলে Prodep 20 mg 1+0+0, Rivotril . 50 mg 0+0+1 দেয়। ওষুধ গুলো চলার ২০/২৫ দিন পরে Vertigo এবং Light headness দেখা দিলে Merison 6 mg এড করে সাইকিয়াট্রিস্ট ১০/১২ দিনের মধ্যে Vertigo এবং Light headness কমে যায় ।ওষুধগুলো চলা অবস্থায় তিন মাস ভালো ছিলাম কিন্তু গত এক মাস ধরে আবার Vertigo এবং Light headness হচ্ছে। প্রডেব মাঝখানে একদিন গ্যাপ দিয়ে খেলে Vertigo and Light headness কমে। কিন্তু একেবারে যাচ্ছে না৷ উল্লেখ্য আমার এখন OCD related সমস্যা গুলো এখন আর নাই। শুধু পেনিক এবং এংজাইটি হয় তাও ওষুধ না খেলে৷ খুব লো ডোজে এবং কম ওষুধে আমি সুস্থ থাকি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

সেক্সুয়াল মিথ ও যৌন স্বাস্থ্য: ২য় পর্ব

পর্নোগ্রাফীতে যে সহজতা থাকে, যে উত্তেজনার মাত্রা থাকে বাস্তব জীবনে তা থাকে না। কারণ অভিনয়ে বাড়াবাড়ি রকমের কিছু না থাকলে মানুষের মনে তা ধরে...

মহামারী কালে মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে পারিবারিক বন্ধনের ভূমিকা

আমাদের কাছের মানুষ গুলোর সাথে আমাদের সম্পর্ক যত গভীর, বিপদ মোকাবেলায় আমাদের মানসিক শক্তি থাকবে ততোটাই বেশী। যে কোন বিপদ মোকাবেলায় পরিবার ও কাছের মানুষদের...

মনস্তত্ত্বে মহামারী

মহামারী আমাদের মনের মাঝে যে দ্বন্দ্ব, শূন্যতা এবং জমাট বাঁধা হতাশা জন্ম দিয়েছে সেগুলো কাটিয়ে উঠতে বেশ সময়ের প্রয়োজন। কিন্তু প্রচেষ্টা শুরু করতে হবে...

করোনায় কর্মজীবনে বেড়ে যাওয়া মানসিক চাপ এবং করণীয়

করোনা আমাদের জীবনের অন্যান্য দিকগুলোর মতো কর্মজীবনকেও অস্বাভাবিকভাবে বদলে দিয়েছে। কর্মজীবন নিয়ে মানসিক চাপ এখন প্রতিটি কর্মজীবী মানুষের জীবনের সাধারণ গল্প। এই মানসিক চাপ...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন