ভয়কে জয় করে নতুন পৃথিবীর পথে যাত্রা

0
174
নতুন পৃথিবী

কোভিড-১৯ আমাদের সবার স্বাভাবিক জীবনকেই এলোমেলো করে দিয়েছে। এই মহামারী থেকে সুরক্ষিত থেকে জীবন যাপনের জন্য অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাজ করে যাওয়া এখন সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ। আমাদের সবার মাঝে এই মহামারী এমন ভাবে ভীতি সঞ্চার করেছে যে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা এখন অত্যন্ত দুরূহ বলে মনে হচ্ছে। কিন্তু সুস্থ ভাবে বেঁচে থেকে করোনা মুক্ত এক নতুন পৃথিবী গড়ে তোলার জন্য এই ভয়কে আমাদের জয় করতেই হবে। এর কোন বিকল্প নেই।

প্রায় একটা বছরের অর্ধেক সময় পেরিয়ে গেছে কিন্তু এখনো আমরা করোনা নামক আতঙ্ক থেকে মুক্ত হতে পারিনি। আমাদের স্বাভাবিক জীবনে আমরা যেভাবে অভ্যস্ত ছিলাম এখন তার প্রায় কোন কাজই আমরা সেভাবে করতে পারছিনা। অধিকাংশ সময় ঘরে থেকেই কাটাতে হচ্ছে এবং সব কিছুই এখন প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে গেছে। শিশুরা স্কুলে যেতে পারছেনা। অনলাইন ক্লাশের মাধ্যমে কিছুটা ক্ষতি পুশিয়ে নেবার প্রচেষ্টা করা হচ্ছে। অন্যদিকে বেসরকারি অনেক কাজই ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ঘরে থেকেই এখন পুরনো কাজ গুলো নতুন উপায়ে নতুনভাবে করার প্রচেষ্টা করছে সবাই। সব কিছুর সাথে এটাও অত্যন্ত দুশ্চিন্তার বিষয় যে এখনো এর কোন কার্যকরী প্রতিষেধক আমাদের হাতে আসেনি। সর্বসাধারণ এখনো এটি মোকাবেলা করতে অক্ষম। সব কিছু বদলে যাওয়ায় এবং করোনা এখনো অপ্রতিরোধ্য হয়ে বিরাজ করায় আমাদের দুশ্চিন্তা দিন দিন বেড়েই চলেছে। করোনা আতঙ্ক কোনভাবেই যেন আমাদের পিছু ছাড়ছেনা। স্বাভাবিক কাজ যেমন দীর্ঘ দিন ফেলে রাখা সম্ভব নয়, তেমনি করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকার উপায় হিসেবে শুধু ঘরে আবদ্ধ থাকা ছাড়া অন্য কোন কার্যকরী উপায় ও আমাদের জানা নেই। তাই ভয় পেয়ে যদি হাত গুঁটিয়ে বসে থাকি তবে করোনায় না হলেও আমাদের ভিতরে থাকা ভয়ই আমাদের শারীরিক ও মানসিক ভাবে অসুস্থ করে দেবে। তাই সুস্থ থাকতে এবং বাঁচার মত বাঁচতে প্রথমে যেটি প্রয়োজন সেটি হল আতঙ্ক মুক্ত হওয়া। যেহেতু এই নিউ নর্মাল লাইফকে আমাদের স্বীকার করে নিতে হবে তাই ভয়কে জয় করে নতুনের সাথে নিজেদের মানিয়ে নেওয়ায় মানসিক শক্তিতে বলিয়ান হতে হবে। মানসিক সুস্থতা এবং মনের জোরই আমাদের নতুন চলার পথকে সুগম করতে পারে।

বাইরের অসুস্থ পরিবেশকে আমরা হয়তো চোখের নিমিশেই পালটে দিতে পারবোনা, কিন্তু যেটা পারবো সেটা হল নিজের মানসিক অশান্তি দূর করা। মনের অসুস্থ পরিবেশকে সুস্থ করা। করোনা ভয় মুক্ত হলে নতুন পরিবেশে মানিয়ে নেওয়ার অনেক উপায়ই বেরিয়ে আসবে। যেমন বিশেষ কাজে বাইরে বের হলে অন্যদের থেকে ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরিধান করা এবং কিছুক্ষণ পর পর হাত জীবাণুনাশক দ্বারা পরিষ্কার করা ইত্যাদি কাজ করলে আমরা অনেকটাই করোনা ঝুঁকি এড়িয়ে চলতে পারবো। কিন্তু করোনার ভয়ে যদি আগেই অসুস্থ হয়ে পড়ি তাহলে করোনা মোকাবেলা তো দূরে থাক, ঘরে বসেই বিনা যুদ্ধেই আমদের হার হবে এবং নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে আমরা ব্যর্থ হবো।

করোনা মহামারীর এই পর্যায়ে আমাদের কাছে এখন মূলত দুটো উপায়ই অবশিষ্ট রয়েছে।  হয় আমরা আমাদের চিন্তা ভাবনাকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখব, নয়তো আমরা নিজেদেরকে চিন্তাভাবনা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হতে দেবো। আপনাদের কি মনে হয়, কোনটা বেশী ভালো? কোনটা আমাদের জন্য মঙ্গলজনক? সবাই নিশ্চই উত্তরটা বুঝতে পেরেছেন। করোনা ভয়কে জয় করে যদি আমরা এই পরিবর্তিত অবস্থার সাথে মানিয়ে নিতে পারি তবেই টিকে থাকা সহজ হবে। তাহলেই আমরা নতুন চলার পথের সন্ধান পাবো। যা অবশ্যই আমাদের জন্য মঙ্গল বয়ে নিয়ে আসবে।

আমরা ঠিক যেমন ভাবে কল্পনা করবো, আমাদের ভবিষ্যৎ ও তেমন হবে। তাই নিজেদের চিন্তাভাবনা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখে ভয়মুক্ত হয়ে নতুন পরিবেশে টিকে থাকার সর্বোত্তম প্রচেষ্টা করতে হবে। ভালো থাকতে হবে। কারণ, ভালো থাকা আমাদেরই হাতে।

সূত্র: https://www.psychologytoday.com/us/blog/optimized/202008/re-entry

অনুবাদ: প্রত্যাশা বিশ্বাস প্রজ্ঞা

মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে চিকিৎসকের সরাসরি পরামর্শ পেতে দেখুন: মনের খবর ব্লগ
করোনায় মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক টেলিসেবা পেতে দেখুন: সার্বক্ষণিক যোগাযোগ
করোনা বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য ও নির্দেশনা পেতে দেখুন: করোনা ইনফো
করোনায় সচেতনতা বিষয়ক মনের খবর এর ভিডিও বার্তা দেখুন: সুস্থ থাকুন সর্তক থাকুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here