মানসিক স্বাস্থ্যের সবকিছু ENGLISH

Home করোনায় মনের সুরক্ষা টিপস্ কোভিড -১৯: বাড়ীতে যেসব সতর্কতা মেনে চলবেন

কোভিড -১৯: বাড়ীতে যেসব সতর্কতা মেনে চলবেন

কোভিড -১৯ মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের কারিগরি নির্দেশনা (এক)। বাড়ীতে যেসব সতর্কতা মেনে চলবেন:
১. বাড়ীতে থার্মোমিটার, মাস্ক, জীবাণুনাশক সরবরাহ এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সংরক্ষণ করুন।
২. পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্য সক্রিয়ভাবে পর্যবেক্ষণ নিরীক্ষণ করুন। এক্ষেত্রে প্রতি সকালে এবং সন্ধ্যায় তাপমাত্রা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

৩. পর্যাপ্ত বায়ুচলাচলের জন্য জানালা ২০-৩০ মিনিটের জন্য দিনে ২-৩ বার খুলে দিয়ে বাড়ির অভ্যন্তরের বায়ু চলাচল অব্যাহত রাখুন।
৪. জীবাণুনাশক দ্বারা বাড়ি ও তার আশেপাশের পরিবেশ পরিষ্কার রাখুন ।
৫. পরিবারের সদস্যদের মধ্যে একটি তোয়ালে সকলে মিলে ব্যবহার করবেন না, ঘন ঘন কাপড় এবং লেপ-তোষক রোদে দিন; ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে তুলুন, যত্রতত্র থুথু ফেলবেন না, হাঁচি দেওয়ার সময় মুখ এবং নাক টিস্যু বা কনুইয়ের ভাঁজে রেখে হাঁচি কাশি দিন।
৬। সঠিক পরিমাণে ও নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন, একটি বৈজ্ঞানিক ডায়েট প্ল্যান করুন, নিয়মিত হালকা ব্যায়াম করুন, পর্যাপ্ত ঘুমান এবং ইমিউনিটি বৃদ্ধি করুন।
৭। বাইরে থেকে ফিরে এবং হাঁচি- কাশির দেয়ার পর হাত সাবান-পানি ব্যবহার করে ধুয়ে নিন অথবা দ্রুত শুকিয়ে যায় এমন জীবাণুনাশক (Sanitizer) দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন।
৮. বন্য প্রাণি খাওয়া বা সংস্পর্শে আসা থেকে বিরত থাকুন। হাঁস-মুরগি ও ডিম খাওয়ার আগে সঠিক তাপমাত্রায় রান্না করুন।
৯. বেড়াতে যাওয়া, দাওয়াত ও আড্ডা দেয়া থেকে বিরত থাকুন।
১০. যদি অসুস্থ থাকেন তবে বাইরে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন, ভিড়ের জায়গায় যাবেন না এবং বাইরে বেরোনোর সময় অবশ্যই মাস্ক পরবেন। আপনার জন্যে সাধারন কাপড়ের মাস্ক ই যথেষ্ট। এটা পরা এবং খোলার নিয়ম অনুসরণ করুন। পুনঃ ব্যাবহার এর ক্ষেত্রে প্রতিবার ব্যাবহার এর পর হালকা গরম পানিতে সাবান গুলিয়ে ভাল করে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিবেন।
১১. জনাকীর্ণ এলাকায় যাতায়াত বা অন্যান্য লোকের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের সময় অবশ্যই মাস্ক পরুন।
১২. আপনি যদি মাঝারি এবং উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলে থাকেন তবে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ এড়িয়ে চলুন বা কমিয়ে আনার/ সীমিত রাখার চেষ্টা করুন; কোয়ারান্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের সাথে মেলামেশার সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা এবং জীবাণুমুক্তকরণের দিকে মনোযোগ দিন, ব্যক্তিগত সুরক্ষা জোরদার করুন এবং মাস্ক পরুন।

সূত্র: অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. রিজওয়ানুল করীম শামীম এর ফেসবুক পোস্ট অবলম্বনে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

আমাদের সাথেই থাকুন

87,455FansLike
55FollowersFollow
62FollowersFollow
250SubscribersSubscribe

Most Popular

ধর্ম এবং মানসিক স্বাস্থ্যের যোগসূত্র

অনেকেই মনে করেন ধর্মীয় বিধি বিধান এবং মানসিক স্বাস্থ্যের মাঝে একটি গভীর সম্পর্ক রয়েছে এবং বিশেষ করে যারা ধর্মীয় জীবন যাপন করেন তারা উন্নত...

আমাকে তোমার মনের কথা বলতে পারো

পরিস্থিতি বুঝে সঠিক কাজটি করা এবং যথাযথ কথা বলা একজন ভাল বন্ধু বা সঙ্গীর লক্ষণ। কাছের মানুষের বিপদে আমরা কোনভাবেই স্থির থাকতে পারিনা। একজন সহানুভূতিশীল...

হাইপোগোনাডিজম: পুরুষের ক্লান্তি-অবসন্নতা-বিষণ্ণতার কারণ

আপনি কি ক্লান্ত? অবসন্ন? বিষণ্ন? যৌন জীবনের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন? এর মূলে থাকতে পারে রক্তে টেসটোসটেরন হরমোনের স্বল্পমাত্রা বা হাইপোগোনাডিজম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে,...

উদ্বেগ কিংবা আতঙ্কে হৃদস্পন্দন কমাতে সহায়ক পরামর্শ

মানসিক চাপ, অস্বস্তিতে কমবেশি সবাই ভোগেন। তবে তা অসুস্থতার পর্যায়ে পৌঁছালে প্রভাবিত হয় দৈনন্দিন জীবন। প্রচণ্ড ভয়, দুশ্চিন্তা থেকে শুরু করে বুক দপদপানি, হৃদস্পন্দনের গতি...

প্রিন্ট পিডিএফ পেতে - ক্লিক করুন